দলের তিন প্রার্থী সম্পর্কে কদর্য ইঙ্গিতপূর্ণ টুইট বিজেপি নেতা তথাগতের

আরও একবার কদর্য ইঙ্গিতবাহী ভাষা নিয়ে টুইটারে হাজির তথাগত রায়৷ চেষ্টা অনেক করেছিলেন৷ কিন্তু চিঁড়ে ভেজাতে পারেননি৷ বিধানসভা নির্বাচনে তথাগত রায়ের (Tathagata Roy) প্রার্থী হওয়ার কাতর আর্জি ঠেলে সরিয়ে দিয়েছে বিজেপির (BJP)শীর্ষ নেতারা৷ তথাগত বার বার নিজের নিজের মানসিক সুস্থতাকে প্রশ্নের সামনে করিয়েছেন নানা বিষয়ে টুইট করে৷ এবার নিজের দলেরই তিন প্রার্থী সম্পর্কেই কুৎসিত মন্তব্য করলেন৷ বোঝাই যাচ্ছে,  প্রার্থী হতে না পেরে তথাগত-র মানসিক সুস্থতা এখন আর একদমই নেই৷

রবিবার এক সংবাদ চ্যানেল আয়োজিত দোলের অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন বিধানসভা ভোটে বিজেপির তিন তারকা- প্রার্থী, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার, তনুশ্রী চক্রবর্তী ৷ ওই অনুষ্ঠানেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিলো তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মদন মিত্রকেও৷ ওই অনুষ্ঠানে মদন মিত্র’র জন্য ‘খেলা হবে’ গানটি যেমন বেজেছে, তেমনই শ্রাবন্তীদের জন্য বেজেছে ‘রং দে তু মোহে গেরুয়া’।

তবে মদন মিত্রের সঙ্গে শ্রাবন্তী, পায়েল, তনুশ্রীর সেলফি নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিতর্ক তৈরি হয়। যদিও শ্রাবন্তী, তনুশ্রী, পায়েলদের সাফাই, অনুষ্ঠানে কোনও রাজনীতির রং ছিল না, এটা নেহাতই রঙের উৎসব। কিন্তু তিন তারকার পিছু ছাড়েনি বিতর্ক ৷ প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপিরই কর্মী ও সমর্থকদের একাংশ৷

 

ওই অনুষ্ঠান ঘিরে যথেষ্ট বিতর্ক এখনও চলছে৷ বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় চড়া সুরে বিঁধছেন দলের এই তিন প্রার্থীকে৷ বলা হচ্ছে, এই হাড্ডাহাড্ডি ভোটের আবহে তৃণমূলের এক নেতা তথা প্রার্থীর সঙ্গে এই ধরনের বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানে হাজির হয় তাঁরা দলের কর্মী-সমর্থকদের মনোবল ভেঙ্গে দিয়েছেন৷ অনেকে দাবি করেছেন, এখনই এদের দল থেকে বহিষ্কার করুন রাজ্য নেতারা৷ তবে কোনও মন্তব্যই শালীনতার সীমা অতিক্রম করেনি৷ বঙ্গ- বিজেপি নেতৃত্ব অবশ্য এখনও এই ইস্যুতে মুখ খোলেননি৷ এই বিতর্ক স্বাভাবিক৷ দলের প্রার্থীরা দলের কর্মীদের আবেগকে যদি আহত করেন, তাহলে কাঠগড়ায় দাঁড়াতেই হবে৷

কিন্তু বিজেপির ওই তিন তারকা- প্রার্থীর এ ধরনের বিতর্কিত ভূমিকার সমালোচনায় সব ধরনের শালীনতার সীমা ছাড়ালেন একই দলের প্রবীণ নেতা তথাগত রায়৷ তিন প্রার্থীর নাম উল্লেখ না করে টুইটে তথাগত লিখেছেন,

“নগরীর নটী চলে অভিসারে যৌবনমদে মত্তা”!   এই নটীদের এখনো এই বোধ হয়নি যে রাজনীতিটা অভিসার নয়”৷

এই টুইট নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে বিজেপির অন্দরেই৷ একাধিক দলীয় নেতা বলেছেন, “ওই তিন তারকা-প্রার্থী ভোটের মুখে এই অনুষ্ঠানটি না করলেও পারতেন৷ তবে একজন সিনিয়র নেতা, যিনি এক সময় দলের রাজ্য সভাপতি ছিলেন, তিনি দলের প্রার্থীদের সম্পর্কে নাম না করেও যা বলেছেন, তা নিন্দাযোগ্য৷ এই মন্তব্য ওনার ফিরিয়ে নেওয়া উচিত”৷ আবার কেউ বলেছেন, ‘তথাগত রায় কারো নাম করেননি’৷ অন্য অংশের বক্তব্য, নাম না করলেও লক্ষ্য যে ওই তিন তারকা, তা বুঝতে অবশ্য কষ্ট করতে হয়না

প্রসঙ্গত, অতীতে নানা বিষয়ে বহুবার বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন তথাগত রায়৷ তৃণমূল প্রার্থী তথা অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের সঙ্গেও টুইট-যুদ্ধে নেমেছিলেন ৭৬ বছর বছরের এই বিজেপি নেতা৷

Advt