বাংলাকে গুজরাট হতে দেব না, গুজরাটিদের বাংলা দখল করতে দেব না: হুগলির জনসভায় বললেন মমতা

আগামী শনিবার, ১০ এপ্রিল রাজ্যে চতুর্থ দফার বিধানসভা( 4th phase assembly election) নির্বাচন। মোট ৪৪ টি আসনে সেদিন ভোটগ্রহণ হবে। বৃহস্পতিবারই ছিল প্রচারের শেষ দিন । মুখ্যমন্ত্রী মমতা(chief minister Mamata Banerjee) বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন হুগলির বলাগড় এবং শ্রীরামপুরে দুটি জনসভা করেন। মুখ্যমন্ত্রী এদিন জনপ্লাবনে ভেসে যাওয়া জনসভাকে প্রশ্ন করেন, আপনারা কি চান? গুজরাটিরা এসে বাংলা চালাক? আমি বেঁচে থাকতে বিজেপিকে বাংলা দখল করতে দেব না। বাংলাকে গুজরাট হতে দেব না। বাংলাকে বাঁচাতে তৃণমূলকে ভোট দিন। বিজেপি কেন ভোট দেবেন? গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে। তোমাদের নেই কোন কাম, মানুষকে করেছ বদনাম। আপনারা বলুন ক্যাশ চাই না গ্যাস চাই। বিজেপি রেল বিক্রি করে দিচ্ছে। সব বিক্রি করে দিচ্ছে। মানুষ খাবে কি? বিজেপির আমলে অর্থিনীতি ধুঁকছে।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, বলাগড় এ অনেক ইটভাটা আছে। একটা সময় কোর্টের অর্ডারে ইটভাটাগুলো বন্ধ হয়ে গেছিল। আমি আবার আইন পাশ করে খুলিয়েছি। আপনারা চিন্তা করবেন না, আমি সব সময় আপনাদের পাশে থাকব। পাশাপাশি মৎস্যজীবিদের জন্যেও কাজ করছি। এখানে ইকো ট্যুরিজম পার্ক হবে।

বলাগড় এ প্রার্থী করেছি মা মাটি মানুষের সার্থক প্রতিনিধি মনোরঞ্জন ব্যাপারিকে। মনোরঞ্জন রান্না করতে করতে বই লিখতেন। ওনাকে রান্নার কাজ থেকে সরিয়ে লাইব্রেরিতে চাকরি দিয়েছি। মনোরঞ্জন ব্যাপারি রিক্সা চালিয়ে নমিনেশন সাবমিট করতে গেছেন।

মানুষ ভোট কেন দেয়? যাতে পাঁচ বছরে একটা সরকার তাদের জন্য কিছু কাজ করে। আমরা আপনাদের জন্য কি করিনি? বিনামূল্যে রেশন, কন্যাশ্রী, রুপশ্রী, ঐক্যশ্রী সব করেছি। ষাট বছর বয়সী তপশিলি বন্ধুদের পেনশন দেওয়া হয়েছে। ১৮- ৬০ বছর বয়সী বিধবারা পেনশন পাবেন। দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে গিয়ে নাম লিখিয়ে নেবেন।

আর ওদিকে বিজেপি কি করেছে? দাঙ্গা করেছে আর মদ খাইয়েছে। গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে তেলের দাম বাড়িয়েছে। আর সব সরকারি সম্পত্তি বেচে দিয়েছে। তাই বলছি বিজেপিকে একটি ভোটও দেবেন না। আগামী দিনে আমরা বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দেব, মা বোনেদের ৫০০- ১০০০ টাকা করে দেব। কৃষক বন্ধুরা এখন যারা ৫০০০ টাকা করে পান, সেটা ১০ হাজার টাকা হয়ে যাবে। ক্ষেতমজুররা ৫ হাজার টাকা করে পাবেন। স্টুডেন্টদের ১০ লক্ষ টাকার ক্রেডিট কার্ড করে দেব।