মডেল কোড অফ কন্ডাক্ট হয়ে গেছে ‘মোদি কোড অফ কন্ডাক্ট’: মমতা

এই লড়াই আমার একার নয়, আপনার সকলের। আমাদের ছেলেমেয়েরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে একটা ফান্ড তৈরি করবে। দলের পক্ষ থেকে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াবো। আশা করি সরকারের তরফেও ঘোষণা করবে। আমি বলতে পারব না নয়তো MCC ভায়োলেট হবে।

আমাকে ৭২ ঘণ্টা আটকে দিল, আমি তার পরেই যাব। MCC এখন হয়ে গেছে মোদি কোড অফ কন্ডাক্ট। প্রচারও একদিন আগে শেষ করে দিচ্ছে। কারন ওরা জানে ১৩ তারিখ উত্তরবঙ্গে বিজেপির প্রচার শেষ। আমাকে প্রচার করতে দিতে চায় না।

আমি নির্বাচন কমিশনকে শ্রদ্ধা করি। কিন্তু যা ঘটনা ঘটাচ্ছে রোজ। আমি কোচবিহারে যেতে চেয়েছিলাম, কিন্তু আমাকে আটকে দেওয়া হলো। আমি বিপদে-আপদে সবসময় মানুষের পাশে দাঁড়াই।

এই লড়াই আমার একার নয়, আপনার সকলের। আমাদের ছেলেমেয়েরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে একটা ফান্ড তৈরি করবে। দলের পক্ষ থেকে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াবো। আশা করি সরকারের তরফেও ঘোষণা করবে। আমি বলতে পারব না নয়তো MCC ভায়োলেট হবে।

মুখ্য সচিব সরকার কর্তৃক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করবেন, যার জন্য অনুমতি চাওয়া হয়েছে।

আমার নির্বাচনী অ্যাকাউন্ট থেকে যে পরিমাণ অর্থ সাশ্রয় হবে তা আমি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার এবং আহতদের দিয়ে দেব।

আমার খুব দুঃখ হচ্ছে এবং আমরা আজকে একটি ‘কালো দিবস’ হিসাবে চিহ্নিত করছি, যা ঘটেছে তার প্রতিবাদে আমরা সমাবেশ করব।

এটি একটি গণহত্যা, এবং আমি কেন বলছি? তাদের গুলি করেছে, তারা পায়ে গুলি করতে পারতো, কিন্তু দেখা গেছে বুকে বা ঘাড়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন ।

কীভাবে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করতে হয় সিআইএসএফ জানে না। সমস্যাটি হ’ল ভিড় নিয়ন্ত্রণে সিআইএসএফের কোনও ভূমিকা নেই,

তবে এখানে তারা জনসাধারণকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য মোতায়েন করা হয়েছিল। তারা সে জন্য প্রশিক্ষিত নয়।

এর পরে, তারা ঘটনাগুলিকে চেপে দিতে চাইছে। এবং সে কারণেই তারা বলেছে যে আমরা ৭২ ঘন্টায় মধ্যে ঘটনাস্থলে যেতে পারবো না।

নির্বাচন ইতিমধ্যে শেষ হয়ে যাওয়ায়, আমরা সেই জায়গাটিতে গিয়ে দেখতে পারি

আপনারা মানুষকে মেরে ফেলতে পারবেন কিন্তু তার পরে আমাকে সেখানে যেতে দিচ্ছেন না?

একটি নির্বাচন কমিশন অবশ্যই আমাদের দেশে গণতন্ত্রকে সমর্থন করবে, একটি আইনী ব্যবস্থা অবশ্যই নিরপেক্ষ বিচার দেবে এবং একটি মিডিয়া যাতে সত্য প্রকাশ করে তাও লক্ষ্য রাখবেন। এগুলি আমাদের সম্পদ

তবে এই তিনটি প্রতিষ্ঠান এর ধীরে ধীরে ক্ষয় হচ্ছে। এগুলি শেষ হলে ভারতে গণতন্ত্র থাকবে না।

প্রধানমন্ত্রীর জন্য আমার অত্যন্ত লজ্জা লাগছে, এত ভয়াবহ ঘটনার পরে আমি সারারাত ঘুমাতে পারিনি, আর উনি নির্বিকার ভাবে সভা করে যাচ্ছেন।

এর মানে ওরা হাসতে হাসতে মানুষকে হত্যা করতে পারে, এটি একটি ভয়াবহ পরিস্থিতি

একটি অযোগ্য সরকার, অযোগ্য প্রধানমন্ত্রী, অযোগ্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তারা প্রতিদিন বাংলায় ভোট দখলে আসছেন

আপনি জনগণের কাছে আবেদন জানাতেই পারেন কিন্তু কেন্দ্রীয় বাহিনীর হুমকি দেওয়া, লোকদের গুলি করে হত্যা করার কথা কে বলেছে।

তাদের সুরক্ষার জন্য এর পরে তাদের ক্লিন চিট দেওয়া হয় !

আর যে এই ক্লিন চিট দিচ্ছেন তাকে বিজেপি নিয়োগ করেছে।

আমি দুঃখিত যে এটি আমার হাতে নেই, ওদেরই এই বিষয়ে কিছু করার ক্ষমতা আছে।

আমি যখন বলেছিলাম তখন কেউ আমাকে বিশ্বাস করেনি

আমি নন্দীগ্রাম থেকে বলেছিলাম কিছু একটা বিপদ ঘটবে কিন্তু কেউ আমাকে বিশ্বাস করেনি

একজন প্রার্থী হিসাবে যখন আমি নন্দীগ্রামের বিভিন্ন জায়গায় গিয়েছিলাম, বোয়ালের ঘটনার পরে, ঘটনাক্রমে টিএমসির কর্মীও মারা গিয়েছেন, আমি দেখেছি যে কীভাবে বাহিনী মানুষকে অপদস্থ করছে

একটি স্কুলে আমাকে বুথের বাইরে বেরিয়ে যেতে বলা হয়েছিল

আমাকে যদি কেউ চিনত তবে সে কি আমাকে বলতে পারত?

স্থানীয় দুটি ছেলে যখন আমার সাথে কথা বলতে চেয়েছিল (একজন সাংবাদিক এর সাক্ষী) একজন কমান্ড্যান্ট আমাদের সেখান থেকে বেরিয়ে আসার আদেশ দেন

আমি এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছি; তারা বাংলা সম্পর্কে কিছুই জানে না তবে তারা বাংলা সম্বন্ধে মন্তব্য করে।

আমাকে সেখানে যাওয়া থেকে বিরত রাখতে এই আদেশ জারি করেছে। যাতে আমি পরিবারের সাথে দেখা করতে না পারি, সমবেদনা না জানাতে পারি

আমি নির্বাচনী সভা করছি, কিন্তু এত লোকের প্রাণহানি আমাকে দু:খ দিয়েছে, আমি অপমানিত বোধ করছি, বিজেপিকে সন্তুষ্ট করতে ওদের সাথে দেখা করতে দেওয়া হলো না।

তাদের সাথে আমি ভিডিও কলে কথা বলেছি।

এই লড়াই আমার একার নয়, আপনার সকলের। আমাদের ছেলেমেয়েরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে একটা ফান্ড তৈরি করবে। দলের পক্ষ থেকে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াবো। আশা করি সরকারের তরফেও ঘোষণা করবে। আমি বলতে পারব না নয়তো MCC ভায়োলেট হবে।

আমাকে ৭২ ঘণ্টা আটকে দিল, আমি তার পরেই যাব। MCC এখন হয়ে গেছে মোদি কোড অফ কন্ডাক্ট। প্রচারও একদিন আগে শেষ করে দিচ্ছে। কারন ওরা জানে ১৩ তারিখ উত্তরবঙ্গে বিজেপির প্রচার শেষ। আমাকে প্রচার করতে দিতে চায় না।

আমি নির্বাচন কমিশনকে শ্রদ্ধা করি। কিন্তু যা ঘটনা ঘটাচ্ছে রোজ। আমি কোচবিহারে যেতে চেয়েছিলাম, কিন্তু আমাকে আটকে দেওয়া হলো। আমি বিপদে-আপদে সবসময় মানুষের পাশে দাঁড়াই।

• ##Talking in phone————————————————–
ফোনে কথা-বার্তা চলাকালীন

এটি একটি গুরুতর অবিচার ছিল, আমার কাছে এটি বর্ণনা করার মতো শব্দ নেই, গরিবদের উপর নির্যাতন করা হচ্ছে। পার্থ দয়া করে ওনাদের পাশে দাঁড়ান, পুলিশ হয়তো এফআইআর পরিবর্তন করতে পারে

যেহেতু পুলিশকে ক্লিন-চিট দেওয়া হয়েছে তাই তারা যা বলেছে সেটাই সত্য বলে মানা হবে, আইনজীবীদের সাথে ফোনে কথা বলো

একটা জিনিস মনে রাখবেন, তারা যে গুলি ছুঁড়েছে সবকটি বুক সমান উচ্চতায় ছিল। এর অর্থ হ’ল এটি একটি গণহত্যা। তারা পায়ে গুলি করেনি, তারা টিয়ার-গ্যাস ব্যবহার করেনি।

দয়া করে পরিবারের সবার পাশে থাকুন, যদি সম্ভব হয় আমাকে ফোন করুন

—————————————————————————

আমি আমার কথা রেখেছি, এবং প্রেসের সামনে দুটি পরিবারের সাথে কথা বলেছি

আমি যদি ব্যক্তিগতভাবে গিয়ে তাদের সাথে কথা বলতাম তবে আরও ভাল হত

আমি যদি সেখানে গিয়ে যদি পরিবারগুলিকে সান্ত্বনা দিতে পারি,আপনারা কি এতে কোন দোষ দেখছেন?

আপনি কি এই সময়ে কাউকে এভাবে থামাতে পারবেন? আমরা যেকোন উপায়ে মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারি

সশরীরে পৌঁছতে না পারলে, আমি শীতলকুচির লোকদের সাথে যোগাযোগ করেছি

সুতরাং আমি বিজেপির আচরণবিধি ভঙ্গ করিনি এবং এখনও যতটা সম্ভব আমরা মানবিক কাজ করেছি। আমি যা বলি তাই করি, আমার যা কিছু আছে সবই আমি দেব।

তারা অবশ্যই সরকারী সহায়তা পাবে

আমরা মারা যাওয়া ব্যক্তিদের পরিবার এবং যাদের বুলেটে আঘাত পেয়েছেন তাদের পরিবারকে সহায়তা করব।

কিছুদিন আগে গিরিন্দ্র নাথ বর্মনকেও আক্রমণ করা হয়েছিল, তিনি একজন জ্ঞানী ব্যক্তি যিনি ঠাকুর পঞ্চানন বর্মার জীবন সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ

আমরা মনে করি আইনের কাছে সবাই সমান

তিন দিন পরে, আমি আমার কর্মীদের হাসপাতালে আহতদের দেখার জন্য নির্দেশ দেব এবং আমি তাদের সাথে কথা বলব

ওখানে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ছিল

ওখানে রাজমিস্ত্রি, অভিবাসী শ্রমিক এবং দরিদ্র মানুষ ছিল

তাদেরকে কেন শরীরের উপরের অংশে গুলি চালানো হল ?

আমি প্রথম থেকেই বলছি, আপনারা ভাগ ভাগ করে ভোট দিতে যান,ওরা চেষ্টা করবে যাতে আপনারা ভোট না দিতে পারেন। গ্রামগুলো বিচ্ছিন্ন করে দেবে যাতে ওদের সুবিধে হয়।

আমি জনগণকে শান্ত থাকতে বলব, জনগণকে তাদের নিজস্ব ভোট দেওয়ার জন্য অনুরোধ করব, প্রতিটি মানুষেরই ভোটের অধিকার আছে।

আরও পড়ুন :সকালে দিনের শুরুতে এবার নতুন স্বাদের দার্জিলিং চা

Advt