“পঞ্চমী-ষষ্ঠীতেই ১৪৮-এর ম্যাজিক ফিগার পার করবে তৃণমূল”, দাবি কুণালের

”সবে চতুর্থী শেষ হয়েছে, অষ্টমীতে যেতে হবে না পঞ্চমী-ষষ্ঠীতেই ১৪৮ এর ম্যাজিক ফিগার পার করে দেবে তৃণমূল। বিজেপি(BJP) ৫০ পার করতে পারবে না মিলিয়ে নেবেন।” মঙ্গলবার সন্ধেয় মানিকতলা বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী(TMC candidate) তথা রাজ্যের মন্ত্রী সাধন পান্ডের(Sadhan Pande) সমর্থনে প্রচারে গিয়ে এমনটাই দাবি করলেন প্রাক্তন সংসদ তথা তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ(Kunal Ghosh)। এর পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানাতেও দেখা যায় তাঁকে।

প্রসঙ্গত, বঙ্গ নির্বাচনের প্রতিটি দফা শেষেই একটি ভবিষ্যদ্বাণী করে চলেছেন বিজেপি নেতা অমিত শাহ। যদিও তাঁর সেই দাবিকে মাইন্ড গেম বলে কটাক্ষ করেছে তৃণমূল। এহেন সময়ই এবার বঙ্গে তৃণমূল যে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসতে চলেছে মঙ্গলবারের জনসভা থেকে সেটা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন কুণাল ঘোষ। পাশাপাশি এদিনের সভায় থেকে সরাসরি নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ শানিয়ে তাঁকে গ্রেফতারের দাবি তুললেন কুণাল। তিনি বলেন, “দিদি কথাটা ভাল তবে যেভাবে দিদি শব্দটাকে বিকৃত করে সুর করে যে ইভটিজিং করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশনকে জানানো হয়েছে। আমরা দাবি করেছি, বাংলার মাটিতে মা-বোনদের সম্মান নিয়ে ছেলেখেলা করার জন্য ইভটিজিংকে প্ররোচনা দেওয়ার জন্য নরেন্দ্র মোদিকে গ্রেফতার করা হোক।”

পাশাপাশি কড়া ভাষায় বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়ে কুণাল ঘোষ আরো বলেন, “শুধু হিন্দু মুসলমান নয় হিন্দুর মধ্যে আবার উঁচু-নিচু খোঁজে এরা। উত্তরপ্রদেশের আমলারা চিঠি লিখছেন ওখানে নিচু জাতের মানুষকে উঁচু জাতের লোকেরা পুকুর থেকে জল নিতে দেয় না পর্যন্ত। ফলে বলার অপেক্ষা রাখে না এরা ক্ষমতায় এলে জাতপাত টানবে। তেলের দাম কমাবে না, গ্যাসের দাম কমাবে না, সুদ বাড়াবে না। বরং আরো বেশি করে জনবিরোধী নীতি নিয়ে চলবে। ফলে এই নির্বাচন শুধু বাংলার নির্বাচন নয়, দিল্লিতে বিজেপিকে হলুদ কার্ড দেখাতে হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিতিয়ে। এটা শুধু বাংলার ভোট নয় দেশের সেমিফাইনাল।”

এছাড়াও মানিকতলা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী কল্যাণ চৌবেকে কটাক্ষ করে কুণাল ঘোষ বলেন, “লকডাউনেরলকডাউনের সময় মানুষের পাশে দাঁড়াতে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঘুরে বেড়িয়েছেন সাধন পান্ডে। আর ঠিক সেই সময় ১২ তলার উপর থেকে ব্যালকনিতে বসে বসে সেই সব দেখেছেন কল্যাণ চৌবে।” সুর চড়িয়ে কুণাল আরও বলেন, “তোমার যদি ইচ্ছে থাকবে তুমি মানিকতলা থেকে লড়বে মানুষের কাজ করবে। সংসদীয় রাজনীতি করবে। ক’মাস আগে মানুষ যখন আমফানে লকডাউনে বিপর্যস্ত তখন মনে হলো না একবার রাস্তায় এসে দাঁড়াই। মানুষের জন্য কিছু করি। আজ ভোট চাইতে এসেছো।”

পাশাপাশি সাধন পান্ডের প্রশংসা করে কুণাল ঘোষ বলেন, “সাধনসাধন পান্ডে দল দেখে কাজ করেন না। মানুষের সাহায্যার্থে দলের নীতির বাইরে বেরিয়ে কাজ করে। দরকার হলে তৃণমূলের কর্মীদের বার করে দেবে। সাধন পান্ডেকে হয়তো ভোট দেয়নি সেই পরিবারের উপকারটা সবার আগে করবে। এইরকমই মানুষ সাধন পান্ডে।”

Advt