টুইটার বন্ধের পর এবার ইনস্টাগ্রামে বিস্ফোরক মন্তব্য, কঙ্গনার বিরুদ্ধে FIR কলকাতা পুলিশে

বঙ্গে তৃণমূলের বিপুল জয়ের পরই টুইটারে একের পর এক উস্কানিমূলক বার্তা পোস্ট করতে থাকেন বলিউডের কনট্রোভার্সিয়াল কুইন। তৃণমূল শাসিত বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি করেন বিজেপি সমর্থক কঙ্গনা। এমনকি মমতাকে ‘রাবণ’-এর সঙ্গেও তুলনা করেন। বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি হারের পর থেকেই সরব হয়েছিলেন তিনি। তাই সাময়িক ভাবে তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু এর বিরুদ্ধে পালটা ইনস্টাগ্রামে প্রতিক্রিয়া দেন কঙ্গনা। সেখানে তিনি সাফ জানান, তাঁর হাতে অন্য সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যেখানে নিজস্ব মতামত জাহির করা যাবে।
ইনস্টাগ্রামে অভিনেত্রী কঙ্গনা বলেন, ‘‘টুইটার কর্তৃপক্ষ আমার বক্তব্যকে প্রমাণ করে দিয়েছে। তারা আমেরিকার মানুষ। জন্মগতভাবে শ্বেতাঙ্গ। আর তাই এক জন অ-শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তিকে তাঁদের দাসত্ব স্বীকার করতে বাধ্য করেছেন।’’ পাশাপাশি কান্নায় ভেঙে পড়ে একাধিক মিডিয়াকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “আমি বুঝতে পারছি না আমাদের দেশ নিয়ে কী ষড়যন্ত্র করছে এঁরা। হিন্দুদের রক্তের কী কোনও দাম নেই”।
এককথায় বাংলায় গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে তৃণমূলের এহেন সাফল্য কঙ্গনা রানাউতের মাথাব্যাথার কারণ হয়ে উঠেছে। এদিকে পদ্ম শিবিরকে সমর্থন জানাতে গিয়ে বাংলার মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরির চেষ্টা করছেন বলিউড অভিনেত্রী, এমন অভিযোগ তুলে কঙ্গনা রানাউতের বিরুদ্ধে কলকাতা পুলিশে FIR দায়ের করা হয় । এমনকি সোমবার হাইকোর্টের আইনজীবী সুমিত চৌধুরী ই-মেল মারফত কঙ্গনার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ।

Advt