আবেগ আর শ্রদ্ধার রবিবাসরীয় কোলাজ: অভিষেকের শিষ্টাচারে আপ্লুত ৩ বর্ষীয়ান নেতা

দলের মেগা বৈঠকে শনিবার গুরুদায়িত্ব দেওয়া হয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Abhishek Banerjee)। দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন তিনি। আর দায়িত্ব পেয়েই গুরুজনদের আশীর্বাদ নিতে গেলেন অভিষেক। শনিবারই অবশ্য দলের প্রবীণ নেতা-কর্মীদের শ্রদ্ধা জানান তৃণমূল সাংসদ। রবিবার তিনজনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। একজন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। আর একজন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। অপরজন সুব্রত বক্সী (Subrata Bakshi)।

ছোটবেলা থেকে যে ছেলেটিকে দেখে আসছেন এই বর্ষীয়ান নেতারা, আজ তিনি নিজের কর্মদক্ষতায় উচ্চ আসন লাভ করেছেন। অথচ ভুলে যাননি শিষ্টাচার। দায়িত্ব পেয়েই দেখা করে আশীর্বাদ নিতে পৌঁছে গিয়েছেন তাঁদের বাড়িতে। আর এখানেই তিনি জয় করে নিয়েছেন সকলের মন। তাঁর বিনম্র ব্যবহারে আপ্লুত বর্ষীয়ান তিন নেতা।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাছে পেয়ে আর আবেগ চেপে রাখতে পারেননি সুব্রত বক্সী। সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক বাড়ি গিয়ে পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করতেই জড়িয়ে ধরেন তাঁকে। সুব্রত বক্সী বললেন, “যেটুকু আছে, তোকে উজার করে দিয়ে দেব”।

রবিবার দুপুর ১২টা ৪০ নাগাদ পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাকতলার বাড়িতে মিষ্টির হাঁড়ি হাতে পৌঁছে যান অভিষেক। তাঁর সঙ্গে নানা বিষয়ে আলোচনা করেন দলের মহাসচিব। সূত্রের খবর, প্রশাসনিক কাজ নিয়ে তাঁকে বিস্তারিত পরামর্শ দেন পার্থ। এর পরেই অভিষেক যান সুব্রত বক্সীর বাড়িতে।

অভিষেককে বড় হতে দেখেছেন এঁরা। সাক্ষী থেকেছেন তাঁর প্রতিটি উত্থানের। তাই এদিন অভিষেক তাঁর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করতেই বিহ্বল হয়ে পড়েন সুব্রত বক্সী। তাঁকে বুকে জড়িয়ে ধরেন। অভিষেক বলেন, “তোমাকে সুস্থ থাকতে হবে”।

এরপরে অভিষেক যান আরো এক বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee) এর বাড়ি। সেখানেও তাঁর সঙ্গে কুশল বিনিময় করে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন অভিষেক।

বর্ষীয়ান তিন তৃণমূল নেতার সঙ্গে দেখা করার পর নিজের ফেসবুক পেজে অভিষেক লেখেন,
“… গতকাল তৃণমূল ভবনে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের বিশেষ অধিবেশনে দলের পক্ষ থেকে আমাকে এক নতুন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সেই দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে আমি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। দলের বর্ষীয়ান নেতা, নেত্রীদের আশীর্বাদ ও পরামর্শ আমাকে এই নতুন যাত্রাপথে অগ্রসর হতে উদ্বুদ্ধ করবে। আমার এই নতুন ভূমিকার সূচনালগ্নে দলের তিন অভিজ্ঞ নেতা তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাজনৈতিক সংগ্রামের দীর্ঘদিনের শরিক শ্রী সুব্রত বক্সি, শ্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও শ্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের সাথে সাক্ষাৎ করলাম। তাঁদের সুচিন্তিত পরামর্শ আগামীর লড়াইয়ে পথ দেখাবে।”

বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) পাশাপাশি প্রচারে ঝড় তোলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার জাতীয় স্তরে দল যাতে আরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে তার জন্যই অভিষেককে গুরুদায়িত্ব দিয়েছেন দলনেত্রী। দায়িত্ব নেওয়ার পরের দিনই কাজে নেমে পড়লেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। তবে নতুন দায়িত্ব পেয়ে অহংকার নয়, বরং বিনীতভাবে বড়দের আশীর্বাদ নিয়ে কাজ শুরু করতে চাইছেন অভিষেক। তারই কিছু ছোট ছোট দৃশ্য দিয়ে তৈরি হল রবিবাসরীয় কোলাজ।

আরও পড়ুন- এবার ভাটপাড়া নিয়ে প্রশাসনের বিরুদ্ধে টুইট ধনকড়ের

Advt