যেসব রাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মারাত্মক প্রভাব পড়েনি, সেখানে বাড়ছে সংক্রমণ, জানাল আইসিএমআর

খুব শীঘ্রই ভারতে নভেল করোনাভাইসের তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এরই মধ্যে দেশের যেসব রাজ্যে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ তেমন প্রভাব দেখায়নি সে সব রাজ্যে ক্রমশই সংক্রমিত সংখ্যা বাড়ছে। তাই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার বিষয়ে রাজ্যগুলিকে আগাম সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছে আইসিএমআর। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ অ্যান্ড এপিডেমিওলজি অ্যান্ড কমিউনিকেবল বিজিবি প্রধান ডা. সমীরণ পান্ডা এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, যেসব রাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের তেমন প্রভাব পড়েনি, সেসব রাজ্যে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। তাঁর মতে, এটা তৃতীয় ঢেউয়ের প্রাক পর্ব।

আরও পড়ুন:জুলহাজ–তনয় হত্যা মামলায় ছয় জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড আদালতের

সমীরণ পান্ডা আরও জানান, ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি রাজ্য কোভিড সংক্রান্ত বিধি নিষেধে ছাড় দিয়েছে। দ্বিতীয় ঢেউয়ে দিল্লি- মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতির থেকে শিক্ষা নিয়ে টিকাকরণ শুরু করেছে। চিকিৎসক পরামর্শ দিয়েছেন, প্রতিদিন রাজ্যগুলিকে দৈনিক সংক্রমণ এবং মৃত্যু সংখ্যার দিকে নজর দিতে হবে। প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণের ধরন কেমন ছিল, নজর দিতে হবে সেদিকেও। সব দিক পর্যালোচনা করে কোভিড-বিধি তৈরি করতে হবে।

ইতিমধ্যেই দেশে ৫০ শতাংশেরও বেশি শিশু কোভিডে আক্রান্ত হয়েছে। এমনটাই তথ্য পাওয়া গিয়েছে চতুর্থ জাতীয় সেরো সার্ভে রিপোর্টে। এমতাবস্থায় স্কুল খোলা প্রসঙ্গে সমীরণ পান্ডা জানান, অযথা ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। তাঁর মতে, যে সমস্ত রাজ্যে টিকাকরণের হার ভালো, তারা কোভিড বিধি মেনেই ধীরে ধীরে স্কুল খুলতে পারে।

চিকিৎসক সমীরণ পান্ডা জানিয়েছেন, শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষাকর্মী, বাস চালক, কনডাক্টরের করোনা ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নেওয়া এবং কোভিড বিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক।

advt 19

 

Previous articleশুভ ঘোষকে সই করালো এসসি ইস্টবেঙ্গল
Next articleভারতে মমতার বিকল্প নেই, বিজেপিতে কাজের পরিবেশ নেই : তৃণমূলে ফিরে বললেন বিধায়ক বিশ্বজিৎ দাস