Municipality Election: সবশেষে ২৮-শে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে বিজেপির

আগামী ১৯ ডিসেম্বর রাজ্যের পুরসভা নির্বাচন

আগামী ১৯ ডিসেম্বর রাজ্যের পুরসভা নির্বাচন(municipality election)। আর এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে শাসক-বিরোধী সব পক্ষই। তৃণমূলের(TMC) তরফে ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে প্রার্থী তালিকা। তবে এই নির্বাচনের বিরোধিতা করে আদালতের দ্বারস্থ হওয়া বিজেপিও যথেষ্ট সতর্ক পুরনির্বাচনকে কেন্দ্র করে। সূত্রের খবর, বাম ও তৃণমূলের পর আগামী ২৮ নভেম্বর প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে গেরুয়া শিবির। বিজেপি(BJP) সূত্রের খবর, এবারের নির্বাচনে মূলত এলাকার বাসিন্দাদের অগ্রাধিকার দেবে বিজেপি। থাকছে না খুব চেনা মুখ।

গেরুয়া শিবিরের তরফে জানা গিয়েছে, কলকাতা পুরসভার ১৪৪টি ওয়ার্ডে প্রার্থী দেবে বিজেপি। এলাকার স্থানীয় লোক, সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে বিজেপির কাজের সঙ্গে যারা যুক্ত, এমন ব্যক্তিদের অগ্ৰাধিকার দেওয়া হবে। জনপ্রিয় কোনও নেতা খুব বেশি থাকছে না প্রার্থী তালিকায়। তবে সমাজের সব অংশের প্রতিনিধিদের রাখার চেষ্টা করা হবে। পুরনো আরএসএস, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সদস্যদেরও প্রার্থী করার ভাবনা রয়েছে বিজেপির। জনপ্রিয় মুখ নয় জনসংযোগের কথা মাথায় রেখেই পুরো নির্বাচনে এই পথে হাঁটছে পদ্ম বাহিনী। যদিও রাজনৈতিক মহলের দাবি, বিধানসভা নির্বাচনে সেলেব মুখে যে ধাক্কা বিজেপি খেয়েছে তারপর যোগ্যপ্রার্থী খুঁজে পেতে যথেষ্ঠ হিমশিম খেতে হচ্ছে। তাতেই প্রার্থী তালিকা প্রকাশের হচ্ছে দেরি।

আরও পড়ুন:Nandigram: বিজেপির হামলায় উত্তপ্ত নন্দীগ্রাম, আক্রান্ত কৃষি আধিকারিক

একই সঙ্গে কলকাতায় প্রচারের জন্য আগেই কমিটি ঘোষণা করেছে বিজেপি। দীনেশ ত্রিবেদীকে কলকাতার পুরভোটের ‘ইনচার্জ’ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে, কলকাতা পুরনিগমের পর্যবেক্ষক করা হয়েছে সাংসদ অর্জুন সিং, বিজেপির সহ সভাপতি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতকে। এ ছাড়া কলকাতাকে চারটি জোনে ভাগ করা হয়েছে ও চারজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এই চারটি জোনের ইনচার্জ হিসেবে থাকছেন রুদ্রনীল ঘোষ, প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল, তুষার ঘোষ এবং কল্যান চৌবে। রুপা গঙ্গোপাধ্যায় সহ ১৪ জনকে নিয়ে পরিচালন কমিটি তৈরি করা হয়েছে।

 

Previous articleNandigram: বিজেপির হামলায় উত্তপ্ত নন্দীগ্রাম, আক্রান্ত কৃষি আধিকারিক
Next articleখড়গপুর থেকে গ্রেফতার কুখ্যাত গ্যাংস্টার শেখ বিনোদ