মোদির নিরাপত্তায় গলদ: কেন্দ্র-রাজ্যের তদন্তে স্থগিতাদেশ, সুপ্রিম বিচারপতির নেতৃত্বে হবে তদন্ত

মোদির নিরাপত্তায় ত্রুটির তদন্ত করবে সুপ্রিম কোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির নেতৃত্বাধীন কমিটি

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির(Narendra Modi) সাম্প্রতিক পাঞ্জাব(Punjab) সফরের সময় নিরাপত্তার ত্রুটির তদন্ত করবে সুপ্রিম কোর্টের(Supreme Court) একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির নেতৃত্বে একটি কমিটি । সোমবার এই নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা, বিচারপতি সূর্যকান্ত এবং বিচারপতি হিমা কোহলি’র বেঞ্চ। সুপ্রিম কোর্ট, কেন্দ্র এবং পাঞ্জাব সরকারকে তাদের নিয়োগ করা কমিটিগুলির দ্বারা চলমান তদন্তগুলি স্থগিত রাখতে বলেছে। আদালত জানিয়েছে এই বিষয়ে বিস্তারিত আদেশ শীঘ্রই জারি করা হবে।

এদিন সুপ্রিম কোর্টে শুনানি চলাকালীন পাঞ্জাব সরকারের পক্ষে অ্যাডভোকেট জেনারেল ডিএস পাটওয়ালিয়া আদালতকে জানান প্রধানমন্ত্রীর ভ্রমণের বিস্তৃত বিবরণ পাঞ্জাব-হরিয়ানা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল রেকর্ডে নিয়েছেন। তিনি আরও উল্লেখ করেন রাজ্যের পুলিশ অফিসার এবং অন্যান্য কর্তৃপক্ষকে সাতটি কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করা হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে, কোনো শুনানির সুযোগ ছাড়াই। এরপর অ্যাডভোকেট জেনারেল অভিযোগ করেন, “আমি কেন্দ্রীয় সরকারের তদন্ত কমিটির কাছ থেকে ন্যায়বিচার পাব না।” তিনি স্বাধীন তদন্তের নির্দেশ দেওয়ার জন্য আদালতকে অনুরোধ করেন। পাল্টা কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপের (এসপিজি) ব্লু বুকের উল্লেখ করে বলেন, “ফ্লাইওভারের কাছে একটি ভিড় জড়ো হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর কনভয়কে কোনও ইঙ্গিত দেওয়া হয়নি, যা একটি সম্পূর্ণ গোয়েন্দা ব্যর্থতা। তারপরেও যেভাবে রাজ্য তাদের (পুলিশ আধিকারিকদের) রক্ষা করছে তা খুবই গুরুতর। কেন্দ্রীয় সরকারের তদন্ত কমিটি পরীক্ষা করছে কোথায় নিরাপত্তার  ত্রুটি ঘটেছে।”

সওয়াল জবাবের পর আদালত কেন্দ্রের নিয়োগ করা  কমিটির তদন্তের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন তোলে। বিচারপতি কোহলি প্রশ্ন করেন, “কারণ দর্শানো নোটিশ জারি করে আপনি ( কেন্দ্র) দেখিয়েছেন যে আপনি কীভাবে (তদন্তে) এগিয়ে যাবেন তা আপনি সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন। তাহলে এই আদালত কেন এই বিষয়ে আদৌ যাবে ?” বিচারপতি সূর্যকান্ত বলেন, “আপনার (কেন্দ্র) কারণ দর্শানোর নোটিশটি সম্পূর্ণ স্ববিরোধী। কমিটি গঠন করে, আপনি এসপিজি আইন লঙ্ঘন হয়েছে কিনা তা তদন্ত করতে চান এবং তারপরে আপনি রাজ্যের মুখ্য সচিব এবং পুলিশ মহাপরিচালককে (ডিজি) দোষী করেন। তারা কি দোষী ?” পাশাপাশি প্রধান বিচারপতি এনভি রামানা প্রশ্ন করেন, “আপনি (কেন্দ্র) যদি রাজ্যের অফিসারদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে চান, তাহলে এই আদালতের আর কী করার থাকে?”

এরপরেই নিজেদের মধ্যে সংক্ষিপ্ত আলোচনার পর, বিচারকরা সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতির নেতৃত্বে একটি স্বাধীন তদন্তের সিদ্ধান্ত নেন। এই ঘটনার অন্য তদন্ত আপাতত বন্ধ রাখার কথা স্পষ্ট করে দিয়ে, আদালত বলেছে যে শীঘ্রই একটি বিস্তারিত নির্দেশ দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন:Abhishek Banerjee: অভিষেক মডেল: ডায়মন্ড হারবারে কোভিড কন্ট্রোল রুম

Previous articleChief Minister: রাজনৈতিক সৌজন্যের নজির মুখ্যমন্ত্রীর: ফোন কোভিড আক্রান্ত সুকান্ত মজুমদারকে