গঙ্গাসাগর মেলায় অগ্নিকাণ্ড, চিকিৎসার জন্য ‘এয়ারলিফ্ট’ করে আনা হলো দু’জনকে

পুণ্যস্নানে আগেই দুর্ঘটনার খবর পাওয়া গেল গঙ্গাসাগরে। মেলায় অগ্নিকান্ডের জেরে আহত হলেন এক মহিলা। তড়িঘড়ি গঙ্গাসাগর থেকে এয়ারলিফ্ট(airlift) করে তাকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে হাওড়াতে(Howrah)। দুর্ঘটনায় ওই মহিলার পাশাপাশি আটক ৩-৪ জনকে এয়ারলিফট করা হচ্ছে বলে খবর।

জানা গিয়েছে, দুর্ঘটনায় আহত ওই মহিলার নাম স্বর্ণলতা মন্ডল। ৪৫ বছর বয়সী ওই মহিলা ওয়াজ শিশু মেলা প্রাঙ্গণে আগুন পোহাচ্ছিলেন। তখনই তাদের শরীরে অসাবধানতাবশত আগুন ধরে যায়। আগুনে মহিলার ৫০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে। গুরুতর জখম অবস্থায় তড়িঘড়ি তাঁকে ও শিশুটিকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে এয়ারলিফ্ট করে প্রথমে হাওড়া ডুমুর জেলা হেলিপ্যাড গ্রাউন্ডে নিয়ে আসা হয়। তারপর সেখান থেকে গ্রিন করিডর করে হাওড়া জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:Omicron: টিকাবিহীনদের জন্য ‘বিপজ্জনক’ ওমিক্রন, সতর্কবার্তা WHO প্রধানের

অন্যদিকে সময় গড়াচ্ছে, ভিড় তত বাড়ছে গঙ্গাসাগর (Gangasagar) মেলা প্রাঙ্গণে। এরই মধ্যে গঙ্গাসাগর পরিদর্শন করে রাজ্য সরকারকে রিপোর্ট দিল হাইকোর্টের নিযুক্ত কমিটি। সূত্রের খবর, মেলার পরিকাঠামো নিয়ে সন্তুষ্ট নয় সেই কমিটি। রিপোর্ট পাওয়ার পরই প্রশাসনিক স্তরে তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিধি মানতে বুধবার কাল রাত থেকেই দফায় দফায় চলছে বৈঠক। হাইকোর্ট রায় দিয়েছে মেলায় করোনা বিধি মানা হচ্ছে কিনা সে বিষয়ে নজরদারি করবে এই কমিটি। যদি তারা মনে করে মেলায় নিয়ম লঙ্ঘন করা হয়েছে, তা বন্ধ করতে হবে তাহলে সরকারকে সেই সংক্রান্ত রিপোর্ট দেবে তারা। এই কমিটিতে রয়েছেন হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় এবং ওয়েস্ট বেঙ্গল লিগাল সার্ভিসেস অথরিটির সেক্রেটারি রাজু মুখার্জি।সূত্রের খবর, গঙ্গাসাগরে আর পুণ্যার্থীদের ভিড় চাইছে না প্রতিনিধি দল। প্রশাসনকে সেই মর্মে অনুরোধও করেছেন তাঁরা। সাগরতটে নজরদারি চালাচ্ছেন দুই মন্ত্রী শশী পাঁজা ও বঙ্কিম হাজরাও।

Previous articleOmicron: টিকাবিহীনদের জন্য ‘বিপজ্জনক’ ওমিক্রন, সতর্কবার্তা WHO প্রধানের