Entertainment: ‘সীতে’ আর ‘হনু’ শব্দের জেরে সেন্সর বোর্ডের কোপে বাংলা ছবি

সিক্যোয়েন্সে একটি রামায়ণের দৃশ্যের শুটিং করা হচ্ছিল। সেখানেই ‘সীতে’ অর্থাৎ সীতা এবং ‘হনু’ অর্থাৎ হনুমান শব্দের উল্লেখ রয়েছে। শব্দ দু’টি একেবারেই নেতিবাচকভাবে ব্যবহার করা হয়নি।

সেন্সরের (Censor board)কোপে বাংলা ছবি (Bengali Movie),ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের জেরে ‘আষাঢ়ে গপ্পো’(Ashare Goppo)নামক ছবি মুক্তি নিয়ে ধোঁয়াশা। বিষয়টি হাস্যকর, বলছেন ছবির পরিচালক অরিন্দম চক্রবর্তী (Arindam Chakraborty)।

বিনোদন জগত বারবার বাধার মুখে। শিল্পীর শিল্প সত্তাকে সেন্সরের(Censor board) কারণে মাথা নিচু করতে হয়েছে এর আগেও, ফের খবরের শিরোনামে সেন্সর বোর্ড। ঠিক কী ঘটেছে? জানা যায় ২০১২ সালে ‘আষাঢে গপ্পো’ নামে ছবিটি তৈরি করেছিলেন পরিচালক অরিন্দম চক্রবর্তী (Arindam Chakraborty)। ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন আবির চট্টোপাধ্যায়( Abir Chatterjee), রুদ্রনীল ঘোষ (Rudranil Ghosh), পায়েল সরকার(Payel Sarkar),সম্পূর্ণা লাহিড়ী, খরাজ মুখোপাধ্যায়ের মতো তারকা। সেই সময় নানা কারণে ছবিটি মুক্তি পায়নি। এতদিন বাদে তা মুক্তির সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় সেন্সর বোর্ডের(Censor board) ছাড়পত্রের জন্য পাঠানো হয়। আর সেখানেই যত সমস্যা। জানা যায় ‘সীতে’ আর ‘হনু’ এই দুটি শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে সিনেমার একটি দৃশ্যে। সেই কারণেই কোপ।

সিক্যোয়েন্সে একটি রামায়ণের দৃশ্যের শুটিং করা হচ্ছিল। সেখানেই ‘সীতে’ অর্থাৎ সীতা এবং ‘হনু’ অর্থাৎ হনুমান শব্দের উল্লেখ রয়েছে। শব্দ দু’টি একেবারেই নেতিবাচকভাবে ব্যবহার করা হয়নি। পরিচালকের কথায়, “সেন্সর বোর্ডকে কেউ যদি নিজের সম্পত্তি বানিয়ে নেয় কিছু তো বলার নেই। কিছু মানুষ, যাঁদের সিনেমা সম্পর্কে কোনও আইডিয়া নেই, তাঁরা যদি সেন্সর বোর্ডে থাকেন, যেটা হওয়ার সেটাই হচ্ছে।” পরিচালক জানান তাঁকে বলা হয় ‘হনু’ শব্দ বাদ দিতে হবে এবং ‘সীতে’ অর্থাৎ সীতা শব্দটিও একইভাবে মিউট করে দিতে হয়েছে পরিচালককে। রামায়ণকে বিকৃত করা হয়নি, কোনও অশ্লীলতা নেই তাহলে শুধুমাত্র ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের দোহাই দিয়ে কিসের জন্য এমন সিদ্ধান্ত?

বর্তমান পটভূমিকায় ‘আষাঢ়ে গপ্পো’সোশ্যাল স্যাটায়ার । খুব শিগগিরিই ছবিটি রিলিজ করার পরিকল্পনা রয়েছে পরিচালকের। তাঁর আগেই বিতর্কের মুখে পরিচালক অরিন্দম চক্রবর্তীর নতুন বাংলা ছবি ‘আষাঢ়ে গপ্পো’।

Previous articleএবার মানবদেহে মিলল বার্ড ফ্লু-র সংক্রমণ, আক্রান্ত এক শিশু