শুভেন্দু বসতেই ভেঙেছিল, ময়নাগুড়ির নাবালিকার পরিবারকে নতুন খাট তৃণমূলের

২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই শনিবার নির্যাতিতার বাড়িতেই নতুন খাট নিয়ে হাজির জলপাইগুড়ি জেলার যুব তৃণমূল সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায়

গতকাল, শুক্রবার ময়নাগুড়ির নির্যাতিতা ও মৃত নাবালিকার বাড়িতে গিয়েছিলেন কার্যত রাজনীতি করতে গিয়েছিলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। যদিও সেখানে গিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতা একেবারেই ভালো নয়। বাঁকুড়ার তালডাঙরার মতো ময়নাগুড়িতেও পাত্তা পাননি শুভেন্দু। একইসঙ্গে আবার নির্যাতিতার বাড়িতে গিয়ে ঘরের মধ্যে অন্যদের সঙ্গে তিনি যখন খাটে বসতে যান, তখনই ভেঙে যায় খাট।

সেই ঘটনার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই শনিবার সেই বাড়িতেই নতুন খাট নিয়ে হাজির জলপাইগুড়ি জেলার যুব তৃণমূল সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায়। গরিব পরিবারের কাছে নতুন খাট তুলে দেন তিনি। এরপর তৃণমূল যুবনেতা বলেন, ‘এই অসহায় পরিবারের সঙ্গে দেখা করে শুভেন্দু অধিকারী কী উপকার করলেন তা বলতে পারবো না। কিন্তু তিনি বাড়ির একটা খাট ভেঙে দিয়েছেন, সেটা গোটা বাংলা দেখেছে। এই পরিবারকে আমরা নতুন একটি খাট দিয়েছি।

এই বাড়িতে একটি ছোট ছেলে আছে, এখন থেকে তার পড়াশুনার সমস্ত খরচ বহন করবো আমরা। তারা যদি বাচ্চাটিকে জলপাইগুড়ির কোনও ভালো স্কুলে পড়তে চায়, সেই ব্যবস্থাও করা হবে। এছাড়াও আরও কোনও প্রয়োজন হলে সবসময় তৃণমূল কংগ্রেস পাশে আছে।’

আরও পড়ুন- বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনের অভিযোগ, সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত শাওমির

Previous articleবৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনের অভিযোগ, সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত শাওমির