বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনের অভিযোগ, সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত শাওমির

সম্প্রতি বে-আইনিভাবে বৈদেশিক মুদ্রা (Foreign Exchange) লেনদেনের অভিযোগে স্মার্টফোন( Smartphone) সংস্থা শাওমি  ইন্ডিয়ার ( Xiaomi India)প্রায় ৫৫৫১ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করলো ইডি বা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট( Enforcement Directorate)। বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন আইনে (ফেমা) তদন্ত শুরু হয়েছে শাওমি ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে। এটি চিনা সংস্থা শাওমির মালিকানাধীন।

ইডি-র তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী স্মার্টফোন নির্মাণকারী এই সংস্থাটি ২০১৪ সালে ভারতে তাদের কাজ শুরু করে। পরের বছর থেকে তারা বিদেশে টাকা পাঠাতে শুরু করে। আরো বলা হয়েছে  ‘৫,৫৫১ কোটি  টাকা তিনটি বিদেশি সংস্থাকে পাঠিয়েছে তারা। এর মধ্যে ছদ্মনামে একটি সংস্থা শাওমিরই নিজস্ব। রয়্যালটির নামে ওই টাকা পাঠানো। এছাড়া আমেরিকার যে দুটো সংস্থাকে টাকা পাঠানো হয়েছে তাও শাওমি গোষ্ঠীর নিজের সুবিধার্থে।

শাওমি ইন্ডিয়া ভারতে মোবাইল ব্র্যান্ড ‘এম আই’-র পরিবেশক। ইডি-র বক্তব্য অনুযায়ী , ‘বিভিন্ন ভুয়ো নথি তৈরি করে বিদেশি সংস্থাগুলিকে অর্থ পাঠানো হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রা পাঠানোর সময় বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর তথ্যও দিয়েছে স্মার্টফোন সংস্থাটি।

আরও পড়ুন- অবশেষে স্বস্তি, শনি-সন্ধেয় কলকাতা, হাওড়া, হুগলি-সহ ২ চব্বিশ পরগনায় কালবৈশাখী

 

 

Previous articleজাতীয় শুটিং দলের কোচ হলেন বাংলার জয়দীপ কর্মকার