কালবৈশাখী ঝড়ে লন্ডভন্ড ক্ষেত, মাথায় হাত বোরো চাষিদের ওই

কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছে পুরাতন মালদহ ব্লকের বোরো চাষের জমি। মাথায় হাত পড়েছে চাষিদের। ক্ষয়ক্ষতির পূর্ণাঙ্গ হিসাব এখনও ব্লক কৃষি দফতরের কাছ থেকে পাওয়া যায়নি। তবে সদ্য লাগানো কাঁচা ধানের অনেকটা অংশ নষ্ট হয়ে গিয়েছে।

যতটুকু অবশিষ্ট আছে সেগুলি সুরক্ষিত রাখতে জমি থেকে কাঁচা ধানই কেটে ঘরে তুলতে শুরু করেছেন চাষিরা।

শনিবার রাতে পুরাতন মালদহে দু’দফায় কালবৈশাখীর ঝড়-বৃষ্টি হয়। রাত আটটা নাগাদ প্রথম দফার ঝড় কিছু সময় পর বন্ধ হয়ে যায়। দ্বিতীয় দফায় ঝড় শুরু হয় রাত ১২টা নাগাদ। ঝড়ের সঙ্গে ছিল বৃষ্টি। এমনকী কিছু এলাকায় শিলাবৃষ্টিও হয়। বিশেষ করে পুরাতন মালদহের মেহেরাপুরে শিলাবৃষ্টির দাপট ছিল যথেষ্ট। কিন্তু কালবৈশাখীর জেরে এই মুহূর্তে ব্লকের বেশ কিছু এলাকায় বোরোচাষের জমিতে জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে। মাটিতে শুয়ে পড়েছে ফলন্ত ধানগাছ। এখনও ধান সম্পূর্ণ পাকেনি। ধান পরিপক্ক হতে অন্তত ১৫ দিন লাগবে বলে জানাচ্ছেন চাষিরা। কিন্তু কাঁচা ধান জলে থাকলে তা সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যাবে। তাই কাঁচা অবস্থাতেই তাঁরা ধান কেটে ঘরে তুলতে শুরু করেছেন।

যাত্রাডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেও সেই একই দৃশ্য। বিঘার পর বিঘা জমির ধানগাছ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। জমিতে দাঁড়িয়ে গিয়েছে জল। তার মধ্যেই চলছে ধান কাটা। সেই ধান উঁচু জায়গায় নিয়ে গিয়ে শুকোতে হচ্ছে।

Previous articleCorona update: সামান্য স্বস্তি, কমল দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ