কালো টাকার রমরমা: ১৪ বছরের রেকর্ড ভেঙে সুইস ব্যাঙ্কে জমা ৩০,৫০০ কোটি ভারতীয় টাকা

নোট বাতিলে(demonetization) কালো টাকা(black money) দেশে ফেরানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি(Narendra Modi)। তবে কালো টাকা ফেরেনি। বরং তা উত্তরোত্তর বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি সুইস ব্যাংকের(Swiss bank) তরফে যে রিপোর্ট প্রকাশ্যে এলো তা মোদি সরকারের চরম ব্যর্থতার এক জ্বলন্ত নিদর্শন। তথ্য বলছে গত ১৪ বছরেরও মধ্যে এ বছর সুইস ব্যাঙ্কে সর্বোচ্চ টাকা জমা করেছে ভারতীয়রা। আর এই রেকর্ড পরিমাণ সংখ্যাটা হল ৩০,৫০০ কোটি টাকা।

সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্কের প্রকাশিত বার্ষিক তথ্য অনুসারে, ২০২১ সালে ভারতীয় কোম্পানি এবং ব্যক্তিদের জমা করা টাকার পরিমাণ এই বছর ৫০ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩০,৫০০ কোটি টাকা। যা বিগত ১৪ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। ২০২০ সালে এই সংখ্যা ছিল ২০,৭০০ কোটি টাকা। অর্থাৎ পর পর ২ বছর সুইস ব্যাংকে কালো টাকা জমার প্রবণতা বাড়ছে ভারতীয় ধনকুবেরদের।

শুধু তাই নয়, রিপোর্টে আরও দাবি করা হয়েছে, সুইস ব্যাংকের সেভিংস ও কারেন্ট অ্যাকাউন্টেও টাকা জমার পরিমাণও সাত বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। সংখ্যার হিসেবে যে টাকার পরিমাণ ৪,৮০০ কোটি। রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১ সালের শেষ পর্যন্ত ভারতীয় গ্রাহকদের ৩০,৮৩৯ কোটি টাকা জমা ছিল। এর মধ্যে অ্যাকাউন্টে ৪,৮০০ কোটি টাকা জমা হয়েছে। ২০২০ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ৪,০০০ কোটি টাকা। উল্লেখ্য, মোদি সরকারের ব্যর্থ নীতির পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনৈতিক বৈষম্য চরম আকার নিয়েছে। যার ফলে পুঁজিপতিদের অর্থের পরিমাণ বেড়ে গিয়েছে বহুগুণ। আর এই বিপুল পরিমাণ অর্থের অনেকখানি অংশই চলে গিয়েছে বিশ্বের কালোটাকার আঁতুড়ঘর সুইস ব্যাংকে।


Previous article‘বিপ্লবী’ সুজনের মুখোশ খুলে দিলেন কুণাল