ত্রিপুরা উপনির্বাচন: বিজেপির বাইক বাহিনীর দাপটে আক্রান্ত তৃণমূল প্রার্থী অর্জুন

সকাল ৭টা থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে ত্রিপুরার চারটি হাইভোল্টেজ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ

বৃহস্পতিবার ভোরের আলো ফুটতেই শুরু হয়েছে ত্রিপুরার চারটি হাইভোল্টেজ কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ।তার আগে রাত থেকে বাইক বাহিনীর দাপট। এবার রাজ্যে শাসক বিরোধী প্রধান চালিকা শক্তি তৃণমূল কংগ্রেস। খুব স্বাভাবিকভাবেই হারের আতঙ্ক থেকে তৃণমূলকে ভয় পাচ্ছে বিজেপি।

আরও পড়ুন:যোগীর বুলডোজার রাজ: প্রধান বিচারপতিকে চিঠি ৯০ অবসরপ্রাপ্ত আমলার

ঠিক সেই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে উপনির্বাচনের আগে।কমপক্ষে ৩০০টি বিজেপি আশ্রিত বাইক বাহিনীর আক্রমণ করতে থাক সুরমার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীর ওপর। ঘাসফুল প্রার্থী অর্জুন নমশূদ্রকে কার্যত বাধ্য করা হয় বিধানভা এলাকার বাইরে অন্য জায়গায় আশ্রয় নেওয়ার জন্য। বিজেপি আশ্রিত বাইক বাহিনী চড়াও হয় অর্জুনের উপর। পরিস্থিতির চাপে পড়ে তাঁকে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী দীপক দাসের বাড়িতে আশ্রয় নিতে হয়। এখানেই শেষ নয়। অশান্তি-সন্ত্রাসের ত্রিপুরায় পরিণত করেছে বিজেপি।

তৃণমূল কংগ্রেস অর্জুন নমশূদ্র বলেন, “আমি সকল সুরমা বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটারদের বলছি, ওদের আতঙ্কে আপনারা ভয় পাবেন না, ভয় দেখালে আপনারা পিছু পা করবেন না। আমি আপনাদের অনুরোধ করছি, ওদের ভোট বাক্সের মাধ্যমে শিক্ষা দিন। আমরা ভয় পাই না। আমরা তৃণমূল কংগ্রেস করি।”

তাঁর আরও অভিযোগ, “কমলপুরে বিজেপি গুন্ডারা আমার গাড়ি ঘেরাও করে এবং যখন তিনি তৃণমূল কর্মী দীপক দাসের বাড়িতে আশ্রয় নিতে যান তখনও বাড়ির ওপর চড়াও হয়। ওরা মানুষকে হত্যা করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।


আরও পড়ুন:শুভেন্দু অধিকারীকে হাওড়ায় যেতে মানা পুলিশের


Previous articleToday market price : আজকের বাজার দর