টলমল মহারাষ্ট্র প্রশাসন, মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন ছাড়লেন উদ্ধব

‘বর্ষা ছেড়ে সপরিবারে মাতোশ্রী চলে যাব৷’ বুধবার বিকেলে ফেসবুক লাইভে এসে উদ্ধব ঠাকরে জানিয়েছিলেন, দলের একজনেরও আপত্তি থাকলে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর পদ আকড়ে পড়ে থাকবেন না৷ ইস্তফা দিয়ে দেবেন৷ এমনকি সরকারি বাসভবন ছেড়ে মাতোশ্রীতে চলে যাবেন৷ সেই ঘোষণা যে স্রেফ মুখের কথা নয় তা বুঝিয়ে দিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী৷ রাতেই সরকারি বাসভবন বর্ষা ছেড়ে মাতোশ্রীতে যাওয়ার প্রস্তুতি করে দেয় মুখ্যমন্ত্রীর পরিবার৷ রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ নিরাপত্তারক্ষীদের বাড়ির ভেতর থেকে ব্যাগপত্তর বের করে বাইরে নিয়ে আসতে দেখা যায়৷ এর কিছুক্ষণ বাদেই বর্ষা ছেড়ে বেরিয়ে পড়েন উদ্ধব ঠাকরে৷ পিছন পিছন বেরিয়ে পড়েন স্ত্রী রেশমি ও ছেলে আদিত্য৷ মাকে নিয়ে পুত্র আদিত্য উঠে পড়েন একটি গাড়িতে৷ প্রত্যেকের বর্তমান ঠিকানা এখন মাতোশ্রী।

আরও পড়ুন:আমার ইস্তফাপত্র তৈরি, যে কোনও শিবসৈনিক মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন: বার্তা ঠাকরের

তবে শিবসেনা মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘‘উদ্ধবই মুখ্যমন্ত্রী পদে বহাল থাকবেন। তিনি ইস্তফা দেবেন না। প্রয়োজনে বিধানসভায় শক্তিপরীক্ষার মুখোমুখি হবেন।’’ যদিও এনসিপি নেতা শরদ পওয়ার ইতিমধ্যেই শিন্ডেকে মুখ্যমন্ত্রী করার জন্য উদ্ধবকে ‘পরামর্শ’ দিয়েছেন বলে শাসক জোট ‘মহা বিকাশ অগাড়ি’ (শিবসেনার পাশাপাশি এনসিপি এবং কংগ্রেস যে জোটের শরিক)-র একটি সূত্র জানিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গুজরাত থেকে অসম পৌঁছে একনাথ শিন্ডে বলেছেন, শিবসেনা ফের বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক মসৃণ করুক।
এদিন সকালেই জানা যায় উদ্ধব কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন। মন্ত্রিসভার বৈঠকে যোগ দেন ভার্চুয়াল মাধ্যমে। সেখানে আবার দেখা যায় আট জন মন্ত্রী আসেননি। ফলে সংকট আরও তীব্র হয়ে ওঠে। দু’দিন ধরে মারাঠা মুলুকের রাজনৈতিক পরিস্থিতি টলমল।


আরও পড়ুন:শুভেন্দু অধিকারীকে হাওড়ায় যেতে মানা পুলিশের


Previous articleত্রিপুরা উপনির্বাচন: বিজেপির বাইক বাহিনীর দাপটে আক্রান্ত তৃণমূল প্রার্থী অর্জুন