নিরাপত্তায় বৈষম্য কেন্দ্রের, রাষ্ট্রপতি প্রার্থী দ্রৌপদী পেলেন Z+, যশবন্তের শুধুই Z

শাসক দল ও বিরোধী শিবির দু’তরফেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে(Presidencial Election) প্রার্থীর নাম ঘোষণা হয়েছে ইতিমধ্যেই। তবে দুই প্রার্থীর নিরাপত্তা মোতায়েনে কেন্দ্রের বৈষম্যমূলক আচরণের ছবিটা আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল। এনডিএ প্রার্থী(NDA Candidate) দ্রৌপদী মুর্মুর(Droupadi Murmu) জন্য গতকালই Z+ নিরাপত্তা দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। শুক্রবার যশবন্ত সিনহাকে(Yashbant Sinha) নিরাপত্তা দেওয়া হল ঠিকই তবে তিনি পেলেন Z ক্যাটাগরি। স্বাভাবিকভাবেই বিরোধী প্রার্থীর প্রতি কেন্দ্রের এহেন বৈষম্যমূলক আচরন স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন তুলে দিচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার দ্রৌপদী মুর্মুকে Z+ ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দেওয়ার পর থেকেই প্রশ্ন উঠছিল, এনডিএ শিবিরের প্রার্থী শীর্ষস্তরীয় কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা পেলে বিরোধী প্রার্থী কেন পাবেন না? এই ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনা শুরু হওয়ার পর শুক্রবার Z ক্যাটাগরির নিরাপত্তা দেওয়া হয় যশবন্তকে। এরপরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে দুই রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর নিরাপত্তার এই বৈষম্য কি ইচ্ছাকৃত? সাধারণত হেভিওয়েটদের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। পদমর্যাদা এবং ঝুঁকি, দুই দিক বিবেচনা করেই হেভিওয়েটদের নিরাপত্তা দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে আঙুল উঠছে সেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের দিকেই। কারণ যশবন্ত সিনহা যিনি একাধারে দেশের প্রাক্তন অর্থ ও বিদেশমন্ত্রী তিনি দ্রৌপদী মুর্মুর মতো অপেক্ষাকৃত কম হেভিওয়েটের থেকে কম নিরাপত্তা কেন পেলেন?

এপ্রসঙ্গে কেন্দ্রের তরফে অবশ্য দাবি করা হচ্ছে, ঝুঁকির পরিমাণ খতিয়ে দেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি আজ শুক্রবার রাষ্ট্রপতি প্রার্থী হিসেবে নিজের মনোনয়ন পেশ করেছেন দ্রৌপদী মুর্মু। মনোনয়ন পেশের সময় এদিন তাঁর সঙ্গে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডার মতো হেভিওয়েট নেতৃত্বরা।


Previous articleCorona in Bangladesh: স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক