‘অগ্নিপথ’নিয়োগ প্রকল্প নিয়ে কেন্দ্রকে তোপ রাহুলের

চার বছর পর যে অগ্নিবীর-রা সেনার চাকরি হারাবেন, তাঁদের ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রাক্তন কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট।

সেনায় ‘অগ্নিপথ’ নিয়োগ প্রকল্প নিয়ে কেন্দ্রকে (Central Government)তোপ দাগলেন রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। তাঁর কটাক্ষ, নরেন্দ্র মোদির গবেষণাগারে (Laboratory) নতুন নতুন পরীক্ষা-নিরীক্ষার জেরে বিপদের মধ্যে দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থা।

রবিবার ওয়ানাডের (Wayanad) কংগ্রেস সাংসদ তাঁর ট্যুইটার হ্যান্ডেলে লিখেছেন, মোদির গবেষণার জন্যেই অন্ধকারে চলে যাচ্ছে দেশের যুব সমাজ। চার বছর পর যে অগ্নিবীর-রা সেনার চাকরি হারাবেন, তাঁদের ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন প্রাক্তন কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট। যদিও সেনায় নিয়োগের ক্ষেত্রে এই প্রকল্প থেকে কোনওভাবেই সরে আসা হবে না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।

‘অগ্নিপথ’ নিয়োগ প্রকল্প নিয়ে ইতিমধ্যেই জনস্বার্থ সংক্রান্ত মামলা দায়ের হয়েছে আদালতে। এই ইস্যুতে উত্তাল হয়েছে সংসদের অধিবেশনও। এর মধ্যেই রবিবার ট্যুইট করে ফের বিতর্ক উস্কে দেন রাহুল গান্ধী। তিনি ট্যুইটে লেখেন, প্রতি বছর ৬০ হাজার সৈনিক অবসর নেন। এর মধ্যে মাত্র ৩ হাজার জনই ফের সরকারি চাকরিতে যোগদান করতে পারেন। চার বছর পর যে হাজার হাজার অগ্নিবীর অবসর নেবেন, তাঁদের ভবিষ্যৎ কী হবে?” ট্যুইটে প্রশ্ন তোলেন রাহুল।

সেনায় জওয়ান পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে নতুন পদ্ধতি চালু করেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার (Narendra Modi Government)। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, সাড়ে ১৭ থেকে ২১ বছর বয়সীরা সেনায় যোগ দিতে আবেদন করতে পারবেন। যাঁদের নিয়োগ করা হবে, তাঁদের নাম হবে ‘অগ্নিবীর’। কিন্তু চার বছর পর মাত্র ২৫ শতাংশকেই সেনায় স্থায়ী চাকরি দেবে সরকার। বাকি ৭৫ শতাংশকে ছাড়তে হবে সেনার চাকরি। তবে বেতন বাদে তাঁদের দেওয়া হবে ১১ থেকে ১৩ লক্ষ টাকা। যা সম্পূর্ণ কর মুক্ত (Tax Free)।

 

 

Previous articleরয়েছেন বিদেশে, ‘বঙ্গবিভূষণ’ পুরস্কার নিতে পারছেন না অমর্ত্য সেন