এক ফ্রেমে ছবি থাকা মানেই পরিচিত নয়: কুৎসার বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন মমতা

ধৃত অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের (Arpita Mukharjee) নাম না করে তিনি বলেন, কোনও পুজোর অনুষ্ঠান মঞ্চে তাঁর সঙ্গে কারও ছবি থাকলে, সে দায় তাঁর নয়।

তাঁর ছবি নিয়ে রাজনৈতিক কুৎসা করার প্রতিবাদে তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তাঁর কথায়, কেউ দোষী হলে, তাঁর যে কোনও শাস্তি হোক- তিনি তাতে কোনও মন্তব্য করবেন না। কিন্তু অযথা তাঁকে এই ঘটনায় জড়িয়ে কালিমালিপ্ত করার বিরোধীদের চেষ্টার তীব্র প্রতিবাদ করেন মমতা। ধৃত অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের (Arpita Mukharjee) নাম না করে তিনি বলেন, কোনও পুজোর অনুষ্ঠান মঞ্চে তাঁর সঙ্গে কারও ছবি থাকলে, সে দায় তাঁর নয়।

বিজেপি (BJP) টাকার পাহাড়ের ছবি দেখিয়ে ঘৃণ্য রাজনীতি করছে। তীব্র কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মেহুল চোকসি, নীরব মোদিদের সঙ্গে কাদের ছবি আছে, সেগুলো প্রকাশ করব! মমতা সাফ জানান ‘‘ভোগ করার জন্য আমি রাজনীতি না। আমার ধারণা ছিল, রাজনীতি মানে ত্যাগ। কিন্তু বলুন তো, সবাই কি এক? পার্থক্য তো থাকবেই। অন্যায়কে সাপোর্ট আমি করি না। দুর্নীতিকে সাপোর্ট করা আমার জীবনের নেশাও নয়, পেশাও নয়।’’
মমতা জানান, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বেতন বা প্রাক্তন রেলমন্ত্রী (Rail Minister) হিসেবে পেনশন মিলিয়ে তিনি মাসে ৩লখ টাকা রোজগার করতে পারতেন। কিন্তু তিনি একটাকাও নেন না। ‘‘আমি কারও পয়সায় খাই না। রেলমন্ত্রী যখন ছিলাম নিজের পয়সায় চা খেতাম। এখনও সার্কিট হাউসে গেলে তাই করি।‘‘ মুখ্যমন্ত্রী জানান, তিনি বই লেখেন। ১২০টি বই বেরিয়েছে তাঁর। গানে সুর দেন। সে সবের রয়্য়ালটি পান। জীবনে কোনও দিন তিনি অন্যায়কে সমর্থন করেননি। তৃণমূল দলও স্বচ্ছ্ব ভাবমূর্তির দল বলে মন্তব্য নেত্রীর।
মুখ্যমন্ত্রীর কথায় জেনে শুনে কোনও দিন কাউকে অন্যায় করতে দেননি। কেউ দোষী হলে, যে শাস্তি পাবে। কিন্তু টাকার পাহাড়ের ছবির সঙ্গে তাঁর ছবি ব্যবহার করায় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘‘আমার ছবির সঙ্গে দিয়ে কুৎসা রটাচ্ছে বিরোধীরা। অর্গানাইজাররা যদি কাউকে স্টেজে আগে থেকে ডেকে রাখে, তাতে আমি কী করতে পারি। তার মানে আমি পুজো প্যান্ডেলে যাব না? যদি কেউ চোর হয়, ডাকাত হয়, তৃণমূল রেয়াত করবে। কিন্তু অযথা আমার গায়ে কালি ছেটানো হলে আমি ছেড়ে কথা বলব না।‘‘
একই সঙ্গে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে (Partha Chatterjee) ভুবনেশ্বরে নিয়ে গিয়ে পরীক্ষা করানোর তীব্র বিরোধিতা করেন মমতা। বলেন, এটার বাংলার অপমান। ’’পার্থকে কেন ভুবনেশ্বর এমসে নিয়ে যাওয়া হল? বাংলায় এত ভাল ভাল হাসপাতাল থাকতেও পার্থকে ভুবনেশ্বর এইমসে নিয়ে যাওয়া হল! কেন ওড়িশায় নিয়ে যাওয়া হল? কেন্দ্রের ছোঁয়া আছে বলে?’’

 

 

 

Previous articleমাঝে মাঝে ভাবি রাজনীতি ছেড়ে দেব: নীতীন গড়করি