ন্যাশনাল হেরাল্ডের অফিস সহ দিল্লির ১২ জায়গায় তল্লাশি ইডির

ন্যাশনাল হেরাল্ড (National Herald) সংবাদপত্রের অফিস সহ দিল্লির ১২ জায়গায় তল্লাশি অভিযান এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (Enforcement Directorate)। তবে মঙ্গলবার বাহাদুর শাহ জফর মার্গে ন্যাশনাল হেরাল্ডের অফিসে নিরাপত্তারক্ষী ছাড়া কেউই উপস্থিত ছিল না বলে খবর। কিন্তু তা অগ্রাহ্য করেই হেরাল্ড সংবাদপত্রের অফিসে তল্লাশি চালায় ইডি আধিকারিকরা। সম্প্রতি ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর (Sonia Gandhi) পাশাপাশি রাহুল গান্ধীকেও (Rahul Gandhi) ইডির ম্যারাথন জিজ্ঞাসাবাদের মুখে পড়তে হয়েছিল। আর সেই সময়ই ইডির অন্যায়ভাবে দলের নেতা নেত্রীদের হেনস্থা করার প্রতিবাদে দেশজুড়ে সত্যাগ্রহ আন্দোলনে সামিল হয় কংগ্রেস (Congress)। তবে ইডির ভয় দেখিয়ে কংগ্রেসের মুখ বন্ধ করা যাবে না বলেই সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মুদ্রাস্ফীতি (Inflation) এবং বেকারত্বের (Unemployment) মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে কোনও জবাব নেই সরকারের কাছে। দেশের জনগণকে তারা জবাব দিতে অক্ষম। আর যারা সরকারকে অস্বস্তিকর প্রশ্ন করছে তাঁদের অপমানিত ও ব্ল্যাকমেল করতেই ইডিকে দিয়ে হেনস্থা করা হচ্ছে, এমনটাই অভিযোগ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের। এদিন ন্যাশনাল হেরাল্ডের দফতরে ইডি হানা দেওয়ার ঘটনায় চরম ক্ষুব্ধ কংগ্রেস সাংসদ জয়রাম রমেশ। তিনি টুইট করে জানান, আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুললেই নোংরা রাজনীতির শিকার হতে হচ্ছে।

সম্প্রতি একাধিক ইস্যুতেই ইডির বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গিয়েছে বিরোধীদের। কেন্দ্রীয় সরকার রাজনৈতিক কারণেই ইডি ও সিবিআইকে ব্যবহার করে বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করার চেষ্টায় মেতে উঠেছে বলে অভিযোগ তুলছে বিরোধীরা।


Previous articleCorona Update: সামান্য কমল সংক্রমণ ! বাড়ছে সুস্থতার হার