“ওটা ওনার ব্যক্তিগত নয়”, এবার বিধানসভায় পার্থর ঘর বন্ধ করলেন স্পিকার

মন্ত্রিত্ব হারানোয় খুব স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভায় পরিষদীয় মন্ত্রীর পদও চলে যায় পার্থর। এবার বিধানসভায় পরিষদীয়মন্ত্রী হিসেবে বন্ধ করে দেওয়া হল পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জন্য নির্দিষ্ট ঘরটিও

নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় এখন ইডি হেফাজতে। ইতিমধ্যেই মন্ত্রিত্ব হারিয়েছেন তিনি। যে দিন মন্ত্রিত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে, সেদিনই কয়েক ঘন্টার মধ্যে নবান্ন দফতর থেকে তাঁর নেমপ্লেট খুলে দেওয়া হয়। সেদিনই আবার দল সাসপেন্ড করে পার্থকে। তৃণমূলের শৃঙ্খলারক্ষা কমিটি মহাসচিব-সহ সমস্ত দলীয় পদ থেকে অপসারণ করে। নতুন তৃণমূল ভবনের রোস্টার অনুযায়ী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দলের সদর দফতরে সোম, বুধ, শুক্র ও শনিবার বসার কথা থাকতো। পার্টির সেই রোস্টার থেকেও বাদ গিয়েছে পার্থর নাম।

এদিকে মন্ত্রিত্ব হারানোয় খুব স্বাভাবিকভাবেই বিধানসভায় পরিষদীয় মন্ত্রীর পদও চলে যায় পার্থর। এবার বিধানসভায় পরিষদীয়মন্ত্রী হিসেবে বন্ধ করে দেওয়া হল পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জন্য নির্দিষ্ট ঘরটিও। ওই ঘরের বাইরে থেকে অবশ্য আগেই পার্থর নেমপ্লেট খুলে দিয়েছিল বিধানসভা কর্তৃপক্ষ। এবার মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঘরটি বন্ধই থাকবে বলে জানা গিয়েছে।

এ বিষয়ে বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‘আমাদের কোনও ব্যাপার নয়। পার্থবাবুর যে ঘর ছিল, তা আমাদের বিধানসভার ঘর। ওঁর নিজস্ব ঘর তো নয়! সেটিতে আমরা সুরক্ষিত রেখেছি।যতদিন না তদন্ত শেষ হচ্ছে, ঘরটি ওই রকমই থাকবে।’’

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের জন্য এতদিন বরাদ্দ থাকা ওই ঘরটি কি এবার অন্য কাউকে দেওয়া হবে? বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘এখনও পর্যন্ত ওই ঘরটি আমাদের তরফে কারও জন্য বরাদ্দ করা হয়নি। করা হবে কিনা, সে নিয়ে কোনও আলোচনাও হয়নি এখনও পর্যন্ত।’’

আরও পড়ুন- SSC দুর্নীতি: মমতাকে চিঠি কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর, ‘রাজনীতি করছেন’ পাল্টা তৃণমূল

Previous articleSSC দুর্নীতি: মমতাকে চিঠি কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর, ‘রাজনীতি করছেন’ পাল্টা তৃণমূল