টাকার পাহাড়: মধ্যপ্রদেশে সরকারি কর্মীর বাড়ি হানা দিয়ে ‘থ’ তদন্তকারীরা

টাকা যেন ‘খোলামকুচি’! সাম্প্রতিক সময়ে রাজ্য সহ দেশের নানা প্রান্তে যেভাবে বিপুল পরিমাণ টাকা উদ্ধার হয়ে চলেছে তাতে বোঝার উপায় নেই কিছুদিন আগেও গরিব এই দেশের বেশিরভাগ মানুষকে রেশনের চালের উপর নির্ভর করে পেটের খিদে মেটাতে হয়েছে। তবে কুবেরের ধন উদ্ধার হয়েই চলেছে লাগাতারভাবে। এ বার মধ্যপ্রদেশে (Madhya Pradesh) এক সরকারি কর্মীর বাড়ি থেকে ৮৫ লক্ষ টাকার সম্পত্তি উদ্ধার হল। যার মধ্যে ৮০ লক্ষ নগদ টাকা ও ৫ লক্ষ টাকার গয়না। বুধবার ওই সরকারি কর্মীর বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালায় মধ্যপ্রদেশ সরকারের ইকোনমিক অফেন্সেস উইং (Economic Offences Wing)-এর আধিকারিকরা। সেখানেই উদ্ধার হয় এই বিপুল পরিমাণ টাকা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, যে কর্মীর বাড়ি থেকে এই বিপুল টাকা উদ্ধার হয়েছে তাঁর নাম হিরো কেশওয়ানি। রাজ্যের চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগের কর্মী তিনি। একটি বেআইনি সম্পত্তি মামলার তদন্তের সূত্র ধরেই ভোপালের বাইরাঘর এলাকায় হিরোর বাড়িতে চলে তল্লাশি অভিযান। আর সেখন থেকেই উদ্ধার হয় এই বিপুল পরিমাণ টাকা। এদিকে বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চলাকালীন অসুস্থ হয়ে পড়েন অভিযুক্ত সরকারি কর্মী। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। চার হাজার টাকা বেতনে রাজ্য সরকারি কর্মী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন হিরো। বর্তমানে প্রতি মাসে বেতন পান ৫০ হাজার টাকা। প্রশ্ন উঠছে এখানেই। ক্লার্কের পদে কাজ করা একজন রাজ্য সরকারি কর্মীর বাড়িতে কোথা থেকে এত টাকা এল! গোটা বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকারের ইকোনমিক অফেন্সেস উইং।

জব্বলপুরে এসপি দেবেন্দ্র সিং রাজপুত বলেন, ভোর ৫টা নাগাদ অভিযুক্তের বাড়িতে অভিযান চালায় ইওডব্লিউ আধিকারিকরা। ৮০ লক্ষ টাকা নগদ, ৫ লক্ষ টাকার সোনা-রুপোর গয়না ছাড়াও ৩৯০০ বর্গফুটের একটি প্লট এবং একটি প্রাসাদোপম বাড়ির খোঁজ পেয়েছে তদন্তকারী দল। এছাড়াও মিলেছে দু’টি এসইউভি গাড়ি, একটি স্কুটার। অভিযুক্তের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রয়েছে ৬ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা।


Previous articleদিল্লি রওনা মুখ্যমন্ত্রীর, সঙ্গে অভিষেকও: একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে ঠাসা সফর