বড় ঘোষণা রাজ্যের: KLO জঙ্গিরা আত্মসমর্পণ করলে মিলবে বিপুল অঙ্কের টাকা

পশ্চিমবঙ্গ(West Bengal) ভেঙে কামতাপুর পৃথক রাজ্যের দাবি তুলেছে জঙ্গি সংগঠন কামতাপুর লিবারেশন অর্গানাইজেশন বা কেএলও(KLO)। তবে এই জঙ্গিদের(Terrorist) সমাজের মুল স্রোতে ফেরাতে বড় পদক্ষেপ নিল রাজ্যসরকার। মঙ্গলবার সরকারের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে, এই জঙ্গিরা অস্ত্র ও আত্মসমর্পণ করলে এককালীন পঞ্চাশ হাজার টাকার পাশাপাশি মিলবে ২ লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট সহ আরও অন্যান্য সুবিধা।

রাজ্যসরকারের তরফে যে পুনর্বাসন প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে সেখানে ৫০ হাজার টাকার পাশাপাশি ২ লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট দেওয়া হবে। সেই এফডি করা হবে স্থানীয় জেলার পুলিশ সুপার বা স্থানীয় কমিশনারেটের শীর্ষ কর্তার সঙ্গে যৌথ ভাবে। আত্মসমর্পণের তিন বছর পরে সেই স্থায়ী আমানতের টাকা ব্যবহার করতে পারবেন আবেদনকারী। এ ছাড়াও তিন বছর ধরে প্রতি মাসে সাড়ে চার হাজার টাকা দেওয়া হবে প্রত্যেক আত্মসমর্পিত জঙ্গিকে। তবে তিনি কোথাও চাকরি পেয়ে গেলে ওই টাকা পাবেন না। বাড়িভাড়া বাবদ মাসে আড়াই হাজার টাকা, পরিবারের সদস্যদের মেডিক্যাল খরচ, বিনামূল্যে ওষুধ, নাবালক সন্তানদের শিক্ষা বাবদ পাঁচশো টাকা এবং কলেজে পড়লে দেড় হাজার টাকা দেওয়া হবে। অস্ত্র সমর্পণের জন্যও ঘোষণা করা হয়েছে প্যাকেজ। ১৯ ধরনের অস্ত্র সমর্পণের কথা বলা হয়েছে প্যাকেজে। স্বয়ংক্রিয় অ্যাসল্ট রাইফেল (একে সিরিজ) জমা দিলে মিলবে এক লক্ষ টাকা। এলএমজি কিংবা স্নাইপার রাইফেল জমা দিলে দু’লক্ষ টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আর পিস্তল বা রিভলভার জমা দিলে পাওয়া যাবে পঁচিশ হাজার টাকা।

ঘোষিত সরকারি নীতি অনুযায়ী আত্মসমর্পণ এবং পুনর্বাসন অফিসার (এসআরও) হিসেবে কাজ করবেন রাজ্য পুলিশের এডিজি (আইবি)। তাঁর অধীনে থাকা স্ক্রিনিং কমিটি আত্মসমর্পণের আবেদন খতিয়ে দেখবে। ধরা দিতে ইচ্ছুক ব্যক্তি সত্যিই কেএলও-র সদস্য কি না, যথাযথ যাচাইয়ের পরে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন এসআরও। এ ক্ষেত্রে পুলিশের প্রতিটি ইউনিটে ডিআইজি বা তাঁর উপরের কোনও অফিসার নোডাল অফিসার হিসেবে কাজ করবেন।


Previous articleইডি হেফাজতের মেয়াদ বাড়ল সঞ্জয়ের, দমবন্ধকর পরিবেশে রাখার অভিযোগ শিবসেনার