ইডির চার্জশিটে থাইল্যান্ড সফরে পার্থ-অর্পিতার সঙ্গী ছিলেন স্নেহময়! কে তিনি?

চার্জশিটে বিভিন্ন তথ্যের কথা উল্লখ করতে গিয়ে এক ব্যক্তির নামও জানিয়েছে ইডি। স্নেহময় দত্ত নামে ওই ব্যক্তির কথার সূত্রেই পার্থ-অর্পিতার থাইল্যান্ড ও গোয়া সফরের কথা জানা গিয়েছে

আদালতে ইডির চার্জশিটের পরই প্রকাশ্যে আসছে পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বিশেষ বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের “ঘনিষ্ঠ” সম্পর্কের একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। দু’জনের নামে যৌথ সম্পত্তির বিষয়টি আগেই জানা গিয়েছিল। এবার পার্থ-অর্পিতার বিদেশ ভ্রমণের তথ্য সামনে এসেছে। থাইল্যান্ডে গিয়েছিলেন পার্থ-অর্পিতা জুটি। তবে ঠিক কবে বা কতবার এমন সফর তাঁরা করেছিলেন সেকথা আদালতে পেশ করা চার্জশিটে উল্লেখ করেনি ইডি। ওই চার্জশিটেই বিভিন্ন তথ্যের মাধ্যমে পার্থের সঙ্গে অর্পিতার “ঘনিষ্ঠতা” প্রমাণ করার আরও তথ্য পেশ করেছে ইডি। তদন্তকারী সংস্থার দাবি, বিদেশ সফরে সঙ্গী হওয়া সেই “ঘনিষ্ঠতা” প্রমাণ করে। এ ছাড়াও অর্পিতার জীবনবিমার “নমিনি” হিসাবে পার্থের নাম থাকাকেও ঘনিষ্ঠতার প্রমাণ বলে দাবি ইডির।

আরও পড়ুন: আদালতের নির্দেশ, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য় ফের জোকা ESI-তে পার্থ

চার্জশিটে বিভিন্ন তথ্যের কথা উল্লখ করতে গিয়ে এক ব্যক্তির নামও জানিয়েছে ইডি। স্নেহময় দত্ত নামে ওই ব্যক্তির কথার সূত্রেই পার্থ-অর্পিতার থাইল্যান্ড ও গোয়া সফরের কথা জানা গিয়েছে। ইডির দাবি, পার্থ-অর্পিতারওই সব সফরে সঙ্গী হয়েছিলেন স্নেহময়ও। থাইল্যান্ডে “অপা”-এর কোনও সম্পত্তি রয়েছে কি না তাও খতিয়ে দেখছে ইডি। শুধু তাইল্যান্ডেই নয়, পার্থ-অর্পিতা একবার গোয়ায় গিয়েছিলেন বলেও স্নেহময় জানিয়েছেন ইডিকে। সঙ্গী ছিলেন তিনিও।

কিন্তু কে এই স্নেহময় দত্ত? কীভাবে অর্পিতার পরিচয় তাঁর? ইডি আদালতে দেওয়া চার্জশিটে স্নেহময়ের বয়ান উল্লেখ করে বিস্তারিত জানিয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে,।পার্থ চট্টোপাধ্যায়-ই ডায়মন্ড সিটির ফ্ল্যাটে অর্পিতার সঙ্গে স্নেহময়ের পরিচয় করিয়ে দেন। “সিমবায়োসিস মার্চেন্টস প্রাইভেট লিমিটেড” নামে এক সংস্থার কর্মী হিসাবে “স” অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে রিপোর্ট করতে হবে বলেও পার্থ তাঁকে নির্দেশ দিয়েছিলেন।

Previous articleখিদের জ্বালায় ছটফট করার শাস্তি! গলা টিপে শিশু খু*নে অভিযুক্ত পিসেমশাই