ট্রেক করতে গিয়ে প্রবল শ্বাসকষ্ট! হিমাচল প্রদেশে মর্মান্তিক মৃ*ত্যু কসবার বাসিন্দার

আয়কর দফতরের আধিকারিক দীপাঞ্জনা ৫ নভেম্বর, দেরাদুনের মৌলি থেকে ট্রেকিং শুরু করেছিলেন। কিন্তু বছর পয়ত্রিশের দীপাঞ্জনার ট্রেকিং করার সময় আচমকাই প্রবল শ্বাসকষ্ট শুরু হয়।

ছোট থেকেই ট্রেকিংয়ের (Trekking) নেশা। আর সেই নেশা থেকেই বারবার পাহাড়ে ছুটে যাওয়া। কিন্তু পাহাড় চড়ার নেশাই যে তাঁর জীবনে এমন সর্বনাশ ডেকে আনবে তা হয়তো কেউই বুঝে উঠতে পারেননি। হিমাচল প্রদেশে (Himachal Pradesh) ট্রেক করতে গিয়ে মৃ*ত্যু হল কসবার (Kasba) বাসিন্দা দীপাঞ্জনা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Dipanjana Banerjee)। সম্প্রতি স্বামী ও সন্তানকে নিয়ে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন দেরাদুনে (Dehradun)। সঙ্গে ছিলেন দীপাঞ্জনার কয়েকজন ঘনিষ্ঠ বন্ধুও।

আয়কর দফতরের (Income Tax) আধিকারিক দীপাঞ্জনা ৫ নভেম্বর, দেরাদুনের মৌলি থেকে ট্রেকিং শুরু করেছিলেন। কিন্তু বছর পয়ত্রিশের দীপাঞ্জনার ট্রেকিং করার সময় আচমকাই প্রবল শ্বাসকষ্ট (Shortness of Breath) শুরু হয়। এরপর শুক্রবার দুপুরেই মৃ*ত্যু হয় কসবার বেদিয়াডাঙ্গার বাসিন্দার। ইতিমধ্যে মৃ*তদেহ আনতে কলকাতা থেকে দেরাদুন রওনা দিয়েছে দীপাঞ্জনার পরিবার। তবে আয়কর দফতরের আধিকারিকের দেহ কলকাতায় ফেরাতে রাজ্য সরকারের (Government of West Bengal) সাহায্য প্রার্থনা করেছে পরিবার।

এদিকে দীপাঞ্জনার মৃ*ত্যুর খবর পেয়েই শোকস্তব্ধ গোটা পরিবার। তাঁদের দাবি ময়নাতদন্তের (Post Mortem) পর দ্রুত দীপাঞ্জনার দেহ বাড়ি ফিরে আসুক। এদিকে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন মা। মেয়ের এভাবে চলে যাওয়া যেন কিছুতেই মানতে পারছেন না তিনি। পরিবারের এক সদস্য জানিয়েছেন, এর আগেও একাধিকবার পাহাড়ের টানে ট্রেক করতে যান দীপাঞ্জনা। এমন সমস্যা তো কখনোই হয়নি, কিন্তু এবার কী এমন হল যার কারণে প্রাণ গেল দীপাঞ্জনার।

Previous articleWhats App: মেটার নয়া চমক! এবার হোয়াটস অ্যাপে ‘ডু নট ডিস্টার্ব’