বঙ্গ রাজনীতিতে সৌজন্যের ছবি! তৃণমূল নেত্রীর দুয়ারে চাঁদা চাইতে সিপিএম নেতা

শিয়রে পঞ্চায়েত নির্বাচন। সেই লক্ষ্যে শাসক-বিরোধী উভয়পক্ষই জোরকদমে প্রচার চালাচ্ছে। এরইমধ্যে তৃণমূল নেত্রীর দুয়ারে গিয়ে চাঁদা চাইতে দেখা গেল প্রাক্তন সিপিএম সাংসদ তথা কৃষক নেতা জিতেন দাসকে ।বঙ্গ রাজনৈতিক সৌজন্যতাবোধের এক অনন্য নজিরের সাক্ষী থাকলেন জলপাইগুড়ির বাসিন্দারা।

আরও পড়ুন:সৌজন্যের নজির: নন্দীগ্রামে পদত্যাগী বিজেপি নেতার বাড়ি তৃণমূল নেতৃত্ব

নজরে পঞ্চায়েত ভোট। তাই জনসংযোগে ব্যস্ত সব দল। দলের গ্রহণযোগ্যতা বুঝে নিতে সিপিএম প্রভাবিত সারা ভারত কৃষক সভার সংগঠনের পক্ষ থেকে পদযাত্রা সহ একাধিক কর্মসূচি চলছে। আর এই কর্মসূচিগুলিকে বাস্তবায়িত করার লক্ষ্যেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে আর্থিক সাহায্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। এর পাশাপাশি তাদের দাবি সম্বলিত লিফলেটও সকলের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে।

বুধবার এমনই কর্মসূচি চলছিল জলপাইগুড়িতে। সেইসময়েই জলপাইগুড়ির পাতকাটা এলাকায় চলে আসেন সিপিএমের প্রাক্তন সাংসদ তথা কৃষক নেতা জিতেন দাস। চাঁদা সংগ্রহ করতে করতে তিনি চলে যান তৃণমূল পরিচালিত পাহাড়পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অনিতা রাউতের বাড়িতে। সিপিএম নেতাকে আসতে দেখে হাসিমুখে সাধ্যমত আর্থিক সাহায্য করেন তৃণমূল নেত্রী।

সিপিএম নেতার চাঁদা আদায় প্রসঙ্গে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘ওঁরা আমার বাড়ি এসে লিফলেট দিয়ে আর্থিক সাহায্য চাইলেন। তাই আমি আমিও সাধ্যমতো সাহায্য করলাম।’ অন্যদিকে তৃণমূল নেত্রীর থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সিপিএমের প্রাক্তন সাংসদ জিতেন দাস জানান, ‘আমরা সাংগঠনিক কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য গণ সাহায্য সংগ্রহ করছি। সমস্ত বাড়িতে যাচ্ছি। আমরা অনিতা দেবীর বাড়িতেও গিয়েছিলাম। জানতাম না উনি পঞ্চায়েত প্রধান। কিন্তু উনি হাসিমুখে আমাদের আর্থিক সাহায্য করেছেন। খুব ভাল লাগল।’

Previous articleশিলিগুড়িতে সরকারি অনুষ্ঠানের মঞ্চে আচমকা অসুস্থ কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়কড়ি