বিডিওর গাড়ির সামনে ঘেউঘেউ করলেন শ্রীকান্ত ! কারণ জানলে চমকে যাবেন

সরকারি এক আধিকারিকের গাড়ির দরজায় মুখ রেখে রীতিমতো ঘেউঘেউ করে যাচ্ছেন এক ব্যক্তি! আর তার এই কাণ্ড দেখে তখন প্রবল অস্বস্তিতে গাড়ির সওয়ারি সরকারি আধিকারিক।

এ দৃশ্য দেখলে আপনিও অবাক হতেন।পরিচ্ছন্ন পোশাক, হাতে ব্যাগ আর বান্ডিল কাগজ নিয়ে বছর চল্লিশের এক ব্যক্তি রীতিমতো উপস্থিত সকলের নজর কেড়েছেন। নিশ্চয়ই ভাবছেন কারণ! আসলে এমন দৃশ্য দেখা গেল বাঁকুড়ায় দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে। সরকারি এক আধিকারিকের গাড়ির দরজায় মুখ রেখে রীতিমতো ঘেউঘেউ করে যাচ্ছেন এক ব্যক্তি! আর তার এই কাণ্ড দেখে তখন প্রবল অস্বস্তিতে গাড়ির সওয়ারি সরকারি আধিকারিক।

কোনওক্রমে পালিয়ে বাঁচলেন তিনি।সরকারি আধিকারিককে অস্বস্তিতে ফেলে দেওয়া ওই যুবকের নাম শ্রীকান্তি দত্ত। বাঁকুড়া-২ নম্বর ব্লকের বিকনা গ্রাম পঞ্চায়েতের কেশিয়াকোল গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জানিয়েছেন, রেশন কার্ডের জন্য আবেদন করেছিলেন। প্রথম পর্যায়ে যখন রেশন কার্ড হাতে পান তখন দেখেন শ্রীকান্তি দত্ত হয়ে গেছে শ্রীকান্ত মণ্ডল। সংশোধনের আবেদন করার পরে ফের যখন কার্ড হাতে পান দেখেন কার্ডে লেখা আছে শ্রীকান্ত কুমার দত্ত।ফের দুয়ারে সরকার শিবিরে গিয়ে গিয়ে সংশোধনের আবেদন জানান। তার পরেই বিপত্তি।

এখান থেকেই শুরু বিপত্তি।শ্রীকান্তির কথায়, এরপর আসা কার্ডে আর মানুষ নয়, হয়ে গেলাম কুকুর! শ্রীকান্তি দত্তের জায়গায় শ্রীকান্তি কুমার কুত্তা। এই ঘটনার পর আমি মানসিকভাবে ভেঙে পড়ি। দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে গিয়ে জয়েন্ট বিডিওকে হাতের কাছে পেয়েও কুকুরের মতো ঘেউঘেউ করেই প্রশ্ন তুলি, দত্ত কী করে কুত্তা হয়ে গেল।এই ঘটনায় তাঁদের সম্মানহানি হয়েছে বলে দাবি করেন তার মা হীরা দত্ত।

 

Previous articleমেঘালয়ে তৃণমূলের এক লক্ষ সক্রিয় সদস্য: তুরার জনসভায় বললেন অভিষেক