ডাল-আলুপোস্ত দিয়ে চন্দনা বাউরির বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ মহাগুরুর

মহাগুরু জানান, তিনি বরাবরই বাঙালি খাবার পছন্দ করেন। আলুপোস্ত তাঁর বিশেষ পছন্দের।

পঞ্চায়েতের আগে গ্ল্যামার অস্ত্রে শান গেরুয়া শিবিরের। আজ, বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ায় মিঠুন চক্রবর্তীর (Mithun Chakraborty) জনসভাকে কেন্দ্র করে উদ্দীপনা BJP কর্মী, সমর্থকদের মধ্যে। মেজুয়ার মাঠে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচার সভাকে কেন্দ্র করে চূড়ান্ত প্রস্তুতি BJP-র।বৃহস্পতিবার প্রথম পর্যায়ে মেজিয়ার দুর্লভপুরে দলের বাঁকুড়া সাংগঠনিক জেলার ২৮ টি মণ্ডলের মণ্ডল সভাপতিদের নিয়ে এক বৈঠকে যোগ দেন মিঠুন।

পরে ওখানেই পূর্ণাঙ্গ জেলা কমিটির বৈঠক হয়। এরপর শালতোড়ার দলীয় বিধায়ক চন্দনা বাউরির (Chandana Bauri) বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজন সারেন তিনি। মেনুতে ছিল ভাত, ডাল, আলুপোস্ত, আলুভাজা, বেগুনভাজা, চাটনি। চন্দনা বাউরির বাড়ির দোতলায় একই সঙ্গে খেতে বসেন সুকান্ত মজুমজার (Sukanta Majumder), সুভাষ সরকার ও মিঠুন চক্রবর্তী। নিজের হাতে পরিবেশন করেন চন্দনা। শেষপাতে ছিল রসগোল্লা। পাত পেড়ে খাওয়াদাওয়া সারেন তাঁরা। শালপাতায় একেবারে বাঙালি খাবার খেয়ে মহাগুরু জানান, তিনি বরাবরই বাঙালি খাবার পছন্দ করেন। আলুপোস্ত তাঁর বিশেষ পছন্দের।

এদিন মিঠুন জানিয়েছেন, চন্দনা বাউরিকে তিনি আগেই কথা দিয়েছিলেন যে, তাঁর বাড়িতে এসে খাওয়া দাওয়া সারবেন। এদিন সেই কথাই রাখলেন তিনি। খাওয়াদাওয়ার কিছুক্ষণ পর চন্দনা বাউরির বাড়ি থেকে বের হন মিঠুন চক্রবর্তী। বিকেলে মেজিয়ায় কর্মিসভা করেন মহাগুরু। এভাবে মিঠুন চক্রবর্তীকে নিজের হাতে রান্না করা খাবার খাওয়াতে পেরেছেন বলে অত্যন্ত আনন্দিত চন্দনা। বৃহস্পতিবার ভোর তিনটে থেকে রান্নার আয়োজন শুরু করেছিলেন তিনি। যে শালপাতায় খেয়েছেন মহাগুরু, তাও নাকি নিজে হাতেই বানিয়েছেন বিধায়ক।

 

 

Previous articleএসএসসির মামলা খারিজ হাইকোর্টে! ডিভিশন বেঞ্চে বহাল সিবিআই তদন্তের নির্দেশ