ধর্ষণের চেষ্টার অপরাধে ৭০ বছরের বৃদ্ধের পুরুষাঙ্গ কেটে নিলেন গৃহবধূ

ধর্ষণ করতে গিয়েছিল। কিন্তু কুকর্ম তো করতেই পারলো না। বরং, নিজের পুরুষাঙ্গ হারাতে হল। হ্যাঁ, ধর্ষণের চেষ্টার অপরাধে ৭০ বছরের বৃদ্ধের পুরুষাঙ্গ কেটে নিল এক গৃহবধূ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার ক্যানিং থানার অন্তর্গত দাড়িয়া তেঁতুলবেড়িয়া গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার বাসিন্দা ইউনুস মোল্লা রাতের অন্ধকারে এক গৃহবধুর বাড়িতে দরজা ভেঙে ঢোকে। সেই সময় ওই গৃহবধূ মমিনা লস্কর তাঁর তিন বাচ্চাকে নিয়ে ঘুমাচ্ছিলেন। এরপর ওই গৃহবধূকে জোর করে ইউনুস মোল্লা ধর্ষণ করতে যায়। সেই সময় গৃহবধূর চিৎকারে পাশের ঘরে থেকে তিনটি ছোট বাচ্চা চলে আসে। এবং তারা মা’কে বাঁচাতে গিয়ে হাতের ধারে যা পায় তাই দিয়ে মারধর করে ওই বৃদ্ধকে।

গৃহবধূ সেই সময় বটি দিয়ে মারলেওই বৃদ্ধের পুরুষঅঙ্গটি কেটে যায়। তারপরেই রক্তাক্ত অবস্থায় ওই বৃদ্ধ ওখান থেকে পালিয়ে যায়। এরপর বৃদ্ধর পরিবার তড়িঘড়ি তাকে নিয়ে যায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে। সেখান থেকে চিকিৎসা রেফার করে দেন কলকাতার হাসপাতালে। এই ঘটনায় গৃহবধূ ক্যানিং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন-ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রী আসেননি জানিয়ে কেজরি : আপনার ঘরের ছেলে মুখ্যমন্ত্রী হয়ে গেল!