অমিল মাস্ক, তৈরিতে হাত লাগালেন পাড়ার দর্জিরাও

করোনা আতঙ্কে মাস্কের চাহিদা তুঙ্গে। দেখা মিলছে না ভাইরাস নিরোধক এন-95 মাস্ক। এমনকী কোনও কোনও জায়গায় সাধারণ মাস্কও পাওয়া যাচ্ছে না। অভিযোগ, মাস্ক নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক কালোবাজারি। এই অবস্থায় মাস্কের জোগান বাড়াতে এবার দর্জির দোকানে অর্ডার দিচ্ছেন অনেকে।
রেডিমেডের যুগে পুজোর সময় ছাড়া দর্জিরা কার্যত মাছি মারেন। তাই আপাতত জামা কাপড় তৈরির পাট চুকিয়ে মাস্ক তৈরিতে নেমেছেন শ্রীরামপুর স্টেশন এলাকার দর্জি গুলাম রাব্বানি আনসারি। দিনরাত এক করে তাঁর দোকানে চলছে মাস্ক তৈরির কাজ। পুজোর মরসুমের মতো কারিগরের সংখ্যাও বাড়িয়েছেন গুলাম সাহেব। প্রায় দশজন কর্মী এখন নাওয়া-খাওয়া ভুলে মাস্ক তৈরি করছেন। ধুলো-বালি থেকে বাঁচতে এসময়ে আপাতত পর্দার আড়ালে থাকা সেলাই মেশিনগুলির খটখট শব্দ চলতে শুরু করেছে। গুলাম সাহেব বলেন, ‘‘বিভিন্ন জায়গা থেকে কয়েক লক্ষ মাস্কের অর্ডার এসেছে। তাই আপাতত জামা-প্যান্ট তৈরির পাট চুকিয়ে দিনরাত এক করে মাস্ক তৈরি করে চলেছি।’’

আরও পড়ুন-গলায় ব্যথা আমলাপুত্রের, ভর্তি বেলেঘাটা আইডিতে