সমবায় ব্যাঙ্কে RBI-এর নিয়ন্ত্রণ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে মোদিকে চিঠি মমতার

“সমবায় ব্যাঙ্ক রাজ্য সরকারের অধীনে। সেখানে হস্তক্ষেপ করার অর্থ হল রাজ্য সরকারের ক্ষমতার উপরেও হস্তক্ষেপ করা।”

রাজ্যের সমবায় ব্যাঙ্কের উপর রিজার্ভ ব্যাঙ্কের তদারকির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এ ভাবেই সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, “কেন্দ্র সমবায় ব্যাঙ্কগুলোর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করছে৷ রাজ্যের সঙ্গে কোনও আলোচনা না করেই আনা হয়েছে অর্ডিন্যান্স। এটা রাজ্যের অধিকারের উপর হস্তক্ষেপ।”

দেশের সব সমবায় ব্যাঙ্ক এখন থেকে নিয়ন্ত্রণ করবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক৷
এ জন্য অর্ডিন্যান্স এনে ব্যাঙ্কিং রেগুলেশন অ্যাক্টের ধারা সংশোধন করা হয়েছে, তা বাতিলের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই সিদ্ধান্তে আপত্তি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে লিখেছেন, সমবায় ব্যাঙ্কের দায়িত্ব বা তদারকির ভার সাধারণত থাকে ব্যাঙ্কগুলোর পরিচালনার দায়িত্বে থাকা রাজ্য সরকারের সমবায় সমিতির রেজিস্ট্রারের উপর। কোন কারনে কেন্দ্র রাজ্যের সেই অধিকার কেড়ে নিতে চাইছে, তা স্পষ্ট করে জানাতে হবে৷

রিজার্ভ ব্যাঙ্ক এখন দেশের সমবায় ব্যাঙ্কগুলোর মূলধন, ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণ এবং ঋণ সংক্রান্ত নীতিগুলির তদারকি করবে বলে বিধি সংশোধন করেছে কেন্দ্র। এরই বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

প্রধানমন্ত্রীকে লেখা ওই চিঠিতে মমতা বলেছেন, সমবায় ব্যাঙ্কের একটা অংশে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নজরদারি এমনিতেই ছিল। এখন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ আনা হচ্ছে। তাই এই সংশোধনী বাতিল করা হোক। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, কেন্দ্র, ২০২০ সালের ২২ শে জুন যে অর্ডিন্যান্স এনে বিভিন্ন সমবায় ব্যাঙ্কগুলির তদারকির ক্ষমতা “একতরফা” ভাবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কাছে হস্তান্তর করেছে তা মেনে নেওয়া যায় না।