Big Breaking: পরীক্ষা বিতর্কে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি মুখ্যমন্ত্রীর

ফাইনাল পরীক্ষাকে আবশ্যিক করার প্রতিবাদ জানালেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইউজিসির গাইডলাইনের প্রতিবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন তিনি। পরীক্ষা নিয়ে পুনর্বিবেচনার আর্জি মুখ্যমন্ত্রীর। এখন পরীক্ষাকে আবশ্যিক করার সিদ্ধান্ত নিয়ে সংশয়। স্বচ্ছতা রাখতে আগের মূল্যায়নের ভিত্তিতে নম্বর দেওয়ার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। পরীক্ষার্থীকে নম্বর দেওয়ার সিদ্ধান্ত রাজ্যের। চাইলে পরীক্ষায় বসতে পারবেন পড়ুয়ারা। সবার সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত রাজ্যের।

ওই চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী উল্লেখ করেছেন, ২৯ এপ্রিল ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে অ্যাডভাইজরি পাঠিয়েছিল। যেখানে বলা হয়েছিল, পরিস্থিতি বুঝে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। তারপরেও পরীক্ষা আবশ্যিক কেন সেই প্রশ্ন তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন, ইউজিসির পূর্ববর্তী নির্দেশিকা মেনে ২৭ জুন রাজ্য সরকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে অ্যাডভাইজরি পাঠিয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছে ৮০ শতাংশ মূল্যায়ন হবে পূর্ববর্তী পরীক্ষা এবং ২০ শতাংশ মূল্যায়ন হবে অন্তর্বর্তীকালীন পরীক্ষার ভিত্তিতে। সেই অনুযায়ী কাজ শুরু করেছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। ওই চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী আরও উল্লেখ করেছেন, দেশজুড়ে ভয়াবহ আকার নিয়েছে মহামারি। এই পরিস্থিতিতে ছাত্রদের স্বার্থ সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এই অবস্থায় অভিভাবকরা চাইছেন না পরীক্ষা নেওয়া হোক। তাই নির্দেশিকা পুনর্বিবেচনা করুক কেন্দ্রীয় সরকার।

প্রসঙ্গত, ৬ জুলাই নির্দেশিকা জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন। যেখানে বলা হয়েছে, চূড়ান্ত বর্ষ বা ফাইনাল সেমিস্টার বাধ্যতামূলক। অফলাইন বা অনলাইন অথবা দুই পদ্ধতি মাধ্যমে চূড়ান্ত বর্ষ বা ফাইনাল সেমিস্টার নিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয়কে। এই গোটা প্রক্রিয়া ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শেষ করতে হবে। এই নির্দেশিকার পর তৈরি হয়েছে বিতর্ক। বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে কীভাবে এই কাজ সম্ভব তা প্রশ্ন উঠেছে। নির্দেশিকা পুনর্বিবেচনা আর্জি জানিয়ে এর আগে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রীককে চিঠি দিয়েছিল।