মাস্ক নিয়ে সংশয়: কী দেখে চিনবেন আসল না নকল?

একাধিক লকডাউন এবং আনলক পর্ব পেরিয়ে এখন যখন মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক বলা হচ্ছে, তখন সমস্যা দেখা দিয়েছে এর ধরন নিয়ে। N95 মাস্ক সংক্রমণ রোধে সবচেয়ে কার্যকরী। কিন্তু এটা নিয়ে এখন সংশয় দেখা দিয়েছে।

বিশেষজ্ঞ এবং চিকিৎসকরা বলছেন, যেসব মাস্কে রেসপিরেটরি ভাল্ভ থাকে, সেগুলি যিনি পড়ছেন তাঁর জন্য ভালো হলেও, তিনি যদি আক্রান্ত হন তাহলে তাঁর থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ভয় থাকছে অন্যদের। সে ক্ষেত্রে ভাল্ভ ছাড়া N95 মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন সকলে। কিন্তু কোনটা সঠিক? কোনটা আসল N95 মাস্ক সেটা কীভাবে বোঝা যাবে?
অর্থনৈতিক বেহাল দশায় অনেকেই রাস্তায় বিক্রি করছেন। ছোটখাটো দোকানেই বিক্রি হচ্ছে মাস্ক। বিক্রি হচ্ছে বড় শপিংমলে। কিন্তু কোন জায়গায়, কার থেকে মাস্ক কেনা সঠিক এই নিয়ে সংশয় ক্রমেই বাড়ছে।
যাঁরা রোগীদের সংস্পর্শে আসছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে N95 মাস্ক বাধ্যতামূলক। কিন্তু বাকিদের ক্ষেত্রে থ্রি লেয়ার সার্জিকাল মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন সকলে। তবে বাজারচলতি বা ডিজাইনার কতটা কার্যকরী তা নিয়ে কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে।
এক্ষেত্রে যদি N95 মাস্ক ব্যবহার করতেই হয় তাহলে কী দেখে বোঝা যাবে সেটি আসল না নকল?

ফিল্টারিং রেসপিরেটরে কোনও চিহ্নিত জায়গা না থাকলে

মাস্কে কোনও টিসি নম্বর না থাকলে

ব্লক লেটারে এনআইওএসএইচ লেখা না থাকা বা ভুল বানানে লেখা থাকলে

নকশাদার কাপড় ব্যবহার হলে

 

সেই মাস্কগুলি নকল।
এই পরিস্থিতিতে মাস্ক ব্যবহার যেমন জরুরি, তেমনি সঠিক আসল মাস্ক নির্বাচন করাটাও জরুরি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।