নজিরবিহীন! স্বামী-স্ত্রী একইসঙ্গে হলেন মাদ্রাজ হাইকোর্টের বিচারপতি

সুপ্রিম কোর্টের কলেজিয়াম বুধবার মাদ্রাজ হাইকোর্টে ১০ জন বিচারপতির নামে ছাড়পত্র দিয়েছে৷

এই ১০ জনের মধ্যে এমন দু’জন আছেন যারা ব্যক্তিগত জীবনে স্বামী-স্ত্রী ৷ এক দম্পতি’র একই হাইকোর্টে বিচারপতি হওয়ার ঘটনা আগে কবে ঘটেছে, প্রবীণ আইনজ্ঞরাও তা মনে করতে পারছেন না৷

তিরুচি প্রিন্সিপাল ডিস্ট্রিক্ট অ্যান্ড সেশন জজ মুরলি শঙ্কর কুপ্পুরাজু এবং মাদ্রাজ হাইকোর্টের মাদুরাই বেঞ্চের রেজিস্ট্রার (জুডিশিয়াল) থামিলসেলভি টি. ভালায়াপালায়াম ১৯৯৬ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন৷ তাঁদের বড় মেয়েও সম্প্রতি থাঞ্জাভুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন পাস করেছেন। সুপ্রিম কোর্টের কলেজিয়াম এই দম্পতিকে একইসঙ্গে মাদ্রাজ হাইকোর্টের বিচারপতি পদে বসিয়ে দিলেন৷
কোয়েম্বাটুরের বাসিন্দা বিচারপতি কুপ্পুরাজু ১৯৯০ সালে সরকারি আইন কলেজ থেকে আইন পাস করে ১৯৯৫ সালে জেলা মুন্সেফ ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে তামিলনাড়ু জুডিশিয়াল সার্ভিসে যোগ দেন।
ওদিকে, ইরোড জেলার পেরুন্ডুরাইয়ের বাসিন্দা ভালয়াপালায়াম পুদুচেরি থেকে আইনে স্নাতক হয়ে ১৯৯৫ সালে বিচারপতি কুপ্পুরাজু-র সাথে একই পদে যোগ দেন। এরপরই প্রেমপর্ব এবং 1996 সালে সংসার পাতেন। তারপর থেকেই দু’জনে তারা পেশাগত জীবনে প্রায় একসাথেই পথচলা শুরু করেন৷

ঘটনাচক্রে, এই দম্পতি একই সময়ে সহকারি জজ, জেলা জজ এবং তারপর মুখ্য জেলা জজ হন৷ যদিও তাদের কর্মস্থল ছিলো আলাদা৷
এবার এই দম্পতি একইসঙ্গে মাদ্রাজ হাইকোর্টে এজলাশে বসে বিচারপতির দায়িত্ব পালন করবেন৷
হয়তো বা কখনও ডিভিশন বেঞ্চে পাশাপাশি বসেই শুনবেন আইনজীবীদের সওয়াল৷

আরও পড়ুন- Big Breaking: গোয়া থেকে মুম্বই পৌঁছলেন দীপিকা, শনিবার হাজিরা এনসিবি দফতরে