শুক্রবার থেকে আগামী ৩ দিন বন্ধ শিয়ালদা ফ্লাইওভার, ঘুরপথে চলবে গাড়ি

টানা তিন দিন বন্ধ থাকবে শিয়ালদহ উড়ালপুল বা বিদ্যাপতি সেতু। পুলিশসূত্রে খবর, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সুড়ঙ্গ নির্মাণের কাজের জন্য ২ অক্টোবর সকাল ৬টা থেকে ৫ অক্টোবর সকাল ৬টা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে উড়ালপুল। ওই তিন দিন উড়ালপুলের পাশাপাশি তার নীচের মার্কেটের বেশ কিছু দোকানও বন্ধ রাখা হবে।

বুধবার পুলিশ জানিয়েছে, এমজি রোড ও বেলেঘাটা রোডের মধ্যবর্তী অংশটুকুই বন্ধ থাকছে। পূর্বদিক গামী মেট্রোর টানেল তৈরি হওয়ার কারণে তিনদিন বন্ধ রাখা হচ্ছে ফ্লাইওভার। উড়ালপুল বন্ধ থাকার কারণে ঘুরপথে চলবে সব গাড়ি। ক্রিক রো, বি বি গাঙ্গুলি স্ট্রিট, আমহার্স্ট স্ট্রিট, কলেজ স্ট্রিট, মহাত্মা গাঁধী রোড, নির্মলচন্দ্র স্ট্রিট এবং এসএন ব্যানার্জি রোড দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে গাড়ি। রাতে কোলে মার্কেটে আসা পণ্যবাহী গাড়িগুলিকেও ঘুরপথে আসতে হবে।

পূর্ব কলকাতার বাসগুলি এপিসি রোড থেকে নারকেলডাঙা মেন রোডে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে। দক্ষিণ কলকাতাগামী বাস ও মিনিবাসগুলি মানিকতলা ক্রসিং থেকে বিবেকানন্দ রোড, আমহার্স্ট স্ট্রিট, বিবি গাঙ্গুলি স্ট্রিট, এনসি স্ট্রিট, লেনিন সরণি দিয়ে ঘোরানো হবে। এজেসি বোস রোড হয়ে দক্ষিণ কলকাতা থেকে যে গাড়িগুলি আসবে, সেগুলি বেলেঘাটা রোড ধরে শিয়ালদহ স্টেশনের দিকে যেতে পারবে।

উত্তরদিক থেকে আসা গাড়িগুলিকে রাজাবাজার মোড় থেকে নারকেলডাঙা মেন রোড, ফুলবাগান ও বেলেঘাটা মেন রোড ধরে শিয়ালদহ স্টেশনের দিকে আসতে হবে।

মৌলালি থেকে রাজাবাজারমুখী গাড়ি বা বাসকে এসএন ব্যানার্জি রোড, ধর্মতলা, চিত্তরঞ্জন অ্যাভিনিউ, কলুটোলা, কলেজ স্ট্রিট দিয়ে পুরনো পথে ফিরিয়ে দেওয়া হবে। আবার মানিকতলা থেকে মৌলালির দিকে আসা গাড়িকে বিবেকানন্দ রোড, আমহার্স্ট স্ট্রিট, বি বি গাঙ্গুলি স্ট্রিট, নির্মলচন্দ্র স্ট্রিট, ওয়েলিংটন, লেনিন সরণি দিয়ে পাঠানো হবে। মানিকতলা থেকে যে সব গাড়ি শিয়ালদহ স্টেশনে যাবে, তাদের নারকেলডাঙা মেন রোড, ফুলবাগান, বেলেঘাটা হয়ে সেখানে পৌঁছতে হবে। রাজাবাজারের দিক থেকে যে সব গাড়ি হাওড়া স্টেশনের দিকে যাবে, তারা উড়ালপুলের মহাত্মা গাঁধী রোড র‌্যাম্প হয়ে সোজা যেতে পারবে।

এপিসি রোড, মহাত্মা গান্ধী রোড, কলেজ স্ট্রিট, বিধান সরণি, লেনিন সরণি ও রফি আহমেদ কিদোয়াই রোডে ট্রাম চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

আরও পড়ুন : সুখবর: উৎসবের মরসুমে মাসে দুবার বেতন রাজ্য সরকারি কর্মীদের

গত বছরও বিদ্যাপতি সেতুর রক্ষণাবেক্ষণের কাজের জন্য তিন দিন বন্ধ রাখা হয়েছিল যান চলাচল। বাস ও গাড়িগুলিকে পাঠানো হয়েছিল বিকল্প পথে। এ বারও সেই একই পরিকল্পনা অনুযায়ী চলা হবে। টালা সেতু না থাকায় উত্তর কলকাতার বিভিন্ন রাস্তায় গাড়ির চাপ এমনিতেই বেশি। তার ওপর, পুজোর আগে কেনাকাটি করতে বেরোবেন প্রচুর মানুষ। সেই সময়ে শিয়ালদা উড়ালপুলের মত ব্যস্ত রাস্তা বন্ধ থাকলে সমস্যায় পড়তে হবে সাধারণ মানুষকে। তাই আগেই সুড়ঙ্গ নির্মাণের কাজ এগিয়ে রাখতে চাইছে কর্তৃপক্ষ। যদিও বর্তমানে ট্রেন বন্ধ। তাছাড়া গান্ধিজয়ন্তীও পড়েছে শুক্রবার। পরের দুদিন শনি রবি। ফলে এই তিন দিন তেমন সমস্যা হবে না বলেই মত তাঁদের।