পক্ষপাতদুষ্ট ‘সারেগামাপা’য় পূর্বনির্ধারিত গোল্ডেন গিটার, বিস্ফোরক যুগল

একেবারে নতুন রূপে গত ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে জি বাংলায় শুরু হয়েছে বাংলার জনপ্রিয় সঙ্গীত রিয়ালিটি শো সারেগামাপা। এই অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করেই এবার গুরুতর অভিযোগ তুললেন এক যুবক। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই অনুষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তাদের দাবি সারেগামাপা পুরোপুরি পক্ষপাত দুষ্ট একটি রিয়্যালিটি শো। তাদের অভিযোগ এই শোতে কারা থাকবেন এবং কারা থাকবেন না তা পূর্বপরিকল্পিত। অনুষ্ঠানের প্রতিযোগীর জন্য বিচারকদের সর্বোচ্চ প্রশংসনীয় মুহূর্ত গোল্ডেন গিটারের ক্ষেত্রেও পক্ষপাতের অভিযোগ তোলেন তারা।

সারেগামাপার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তোলা ওই যুগলের নাম শ্রীধারা গুপ্ত মল্লিক এবং অভীক মল্লিক। জানা গিয়েছে বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী সুচিত্রা মিত্রের শিষ্য-শিষ্যা এই যুগল। সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা দাবি করেন দিদি নম্বর-১ অনুষ্ঠানে রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ার পর সারেগামাপা কর্তৃপক্ষের তরফে অতিথি শিল্পী হিসেবে গান গাওয়ার অনুরোধ জানানো হয় তাদের। তারপর সারেগামাপা কর্তৃপক্ষের তরফে দ্বৈতকণ্ঠে বারবার গান গাওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। সবশেষে প্রতিযোগী হিসেবে এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন তারা। শো শুরুর বেশ কিছুদিন আগে থেকে গ্রুমিং এবং প্রোডাকশন থেকে তাঁদের একটি স্বরলিপি মেনে রবীন্দ্র সঙ্গীত প্রশিক্ষণ করানো হয়। কিন্তু অনুষ্ঠানের কিছু দিন আগে তাদের না জানিয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে গান পাল্টে দেওয়া হয়। এবং মঞ্চে গাইতে দেওয়া হয় ‘ভেঙে মোর ঘরের চাবি’ রবীন্দ্র সংগীত। যে গান আবার বিচারকদের পছন্দ হয়নি বলে অনুষ্ঠান থেকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয় তাদের।

এই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি ওই রিয়্যালিটি শোয়ের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় তারা দাবি করেন, যে গান শুনে বিচারকদের তরফে তাদের বাদ দেওয়া হয়েছে সেই গান লকডাউনে সোশ্যাল মিডিয়ায় খালি গলায় ৯১ হাজার দর্শক ভিউজ এবং প্রচুর মানুষের প্রশংসা পেয়েছেন তারা। ‘সারেগামাপা’তে অনুষ্ঠান সম্প্রচারের পরের দিনও প্রচুর মানুষ তাদের শুভেচ্ছা বার্তা দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন ওই যুগল। পাশাপাশি সারেগামাপা অনুষ্ঠানের বিরুদ্ধেও রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে ওই যুগল দাবি করেন, এই রিয়ালিটি শো পুরোপুরি পক্ষপাত দুষ্ট। কারা থাকবেন এবং কারা থাকবেন না তা আগে থেকে ঠিক করা থাকে। একইভাবে বিচারকমণ্ডলীর তরফে পক্ষপাতদুষ্ট ভাবে প্রতিযোগীদের দেওয়া হয় গোল্ডেন গিটার। সোশ্যাল মিডিয়ায় জি-বাংলা কর্তৃপক্ষ ও বিচারকদের কাছে তারা অনুরোধ করেন, রবীন্দ্র সংগীত গাওয়ার নাম করে এভাবে প্রহসন না করার জন্য। পাশাপাশি তাদের অনুরোধ সংগীত শিল্পীদের ডেকে এইভাবে অপমান করবেন না।

আরও পড়ুন- কোহলির ‘বিরাট’ ব্যাটিংয়ে বেলাইন ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’