অভিষেকের ক্যারিশ্মা: আলিপুরদুয়ারে সন্ধি শাসকদলের যুযুধান দুই গোষ্ঠীর

শেষ পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করতে হল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। আর তাতেই আলিপুরদুয়ারে মিটল শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। নব্য বনাম পুরনো তৃণমূলের লড়াইয়ে গত বেশ কয়েকদিন ধরে সরগরম ছিল আলিপুরদুয়ারের রাজনীতি। সিপিআইএম ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে দলের অন্দরেই ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। সেই ক্ষোভ মেটাতে আসলে নামেন তৃণমূল সাংসদ তথা যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশের পরে এখন আলিপুরদুয়ারে তৃণমূল শিবিরে ঐক্যের বার্তা।

কয়েকদিন আগে আলিপুরদুয়ারে তৃণমূলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘পরিযায়ী নেতা’ বলে কটাক্ষ করে মোহন শর্মা গোষ্ঠী। বিষয়টা এমন দাঁড়ায় যে দলের অন্দরের ঝামেলা প্রকাশ্যে চলে আসে। রবিবার এক অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যেই একথা বলতে শোনা যায় মোহন শর্মাকে। আর এই পরিস্থিতিতে ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমে পড়ে বিরোধীরা। শেষ পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করতে হয় শীর্ষ নেতৃত্বকে। শিলিগুড়িতে তাঁদের কথা বলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপরেই ম্যাজিক। তাঁর নির্দেশেই প্রকাশ্যে হাত মেলান দুই নেতা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় ও মোহন শর্মা। আগামী দিনে একসঙ্গে লড়ার অঙ্গীকারও করে যুযুধান দুই গোষ্ঠী। যদিও এই ঐক্যের বার্তাকে কটাক্ষ করেছে জেলা বিজেপি।

আরও পড়ুন-অনুপ্রেরণা মুখ্যমন্ত্রী, সমাজের কল্যাণে এবার রক্ত দিলেন শিক্ষকরা