শত্রুকে বার্তা দিয়ে আরব সাগরে নয়া ব্রহ্মস মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ ভারতের

একদিকে পাকিস্তান, অন্যদিকে চিন। ক্রমাগত শত্রুতা চালিয়ে যাওয়া এই দুই দেশের কর্মকাণ্ডে রীতিমতো বিরক্ত ভারত। লাদাখ ইস্যুতে চিনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত উত্তেজনা বেড়েছে ক্রমাগতভাবে। সেই আবহেই এবার শত্রুকে বার্তা দিয়ে ব্রহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করল ভারতীয় নৌ সেনা। রবিবার আরব সাগরে ‘স্টিলথ ডেস্ট্রয়ার আইএনএস চেন্নাই’ যুদ্ধজাহাজ থেকে সফল উৎক্ষেপণ করা হয় এই মিসাইলের। নিজের লক্ষ্যবস্তুতে একেবারে নিখুঁত ভাবে আঘাত হানে এই মিসাইল।

সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই একাধিক ব্রহ্মস মিসাইল রয়েছে ভারতীয় সেনার হাতে। তবে রবিবার ব্রহ্মস সুপারসনিক ক্রুজ নামের যে মিসাইলের সফল উৎক্ষেপণ করা হল তার মারণ ক্ষমতা অনেক বেশি। আর এমন সময়ে এই মিসাইল উৎক্ষেপণ করা হল যখন সীমান্তে ভারত ও চিনের মধ্যে উত্তেজনা আরও বেড়েছে। ফলে এই মিসাইলের পরীক্ষা চিনকে উদ্দেশ্য করে একটি বার্তা বলেও মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল। প্রসঙ্গত, ভারতের অরুণাচল প্রদেশ এবং লাদাখে চিন সীমান্তবর্তী এলাকায় অনেক আগেই ব্রহ্মস মিসাইল মোতায়েন করেছে প্রতিরক্ষা বিভাগ। ভারতের হাতে শুরুতে ব্রহ্মস সিরিজের প্রথম যে মিসাইল ছিল তার রেঞ্জ ছিল মাত্র ২৯০ কিলোমিটার।

আরও পড়ুন: দিল্লিতে শর্তসাপেক্ষে দুর্গাপুজোর অনুমতি

পরে এই মিসাইলের প্রযুক্তিগত পরিবর্তন ঘটিয়ে আরও বেশি অত্যাধুনিক করে তোলে ডিআরডিও। দ্বিতীয় সিরিজে যে মিসাইল আনা হয় তার রেঞ্জ ছিল ৪০০ কিলোমিটারের বেশি। বর্তমানের ব্রহ্মস সিরিজের যে সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইলের সফল পরীক্ষা করা হল সেটি ৪৫০ কিলোমিটারেরও বেশি দূরে যেকোনও লক্ষ্যবস্তুতে সফলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম। প্রসঙ্গত, এই সুপারসনিক ক্রুজ মিসাইল ভারত ও রাশিয়া যৌথভাবে তৈরি করেছে। নয়া এই মিসাইল ডুবোজাহাজ, যুদ্ধজাহাজ, যুদ্ধবিমান এবং যেকোনও স্থলভূমি থেকে শত্রুকে টার্গেট করে ধ্বংস করে দিতে সক্ষম।