হল না আসন রফা, যৌথ কর্মসূচির হিসেব কষেই শেষ বাম-কংগ্রেস বৈঠক

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বামেদের সঙ্গে জোট বেঁধে লড়াই করতে চলেছে কংগ্রেস(Congress)। গত ডিসেম্বর মাসেই কংগ্রেস হাইকমান্ডের তরফে এ বিষয়ে সবুজ সংকেত দিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে বিধানসভার লড়াইয়ে কোন অঙ্কে আসন ভাগাভাগির হবে তার হিসেব কষতে বৃহস্পতিবার বৈঠকে বসে ছিল বাম(left) কংগ্রেস নেতৃত্ব। তবে শেষ পর্যন্ত নিষ্ফলা হল এই জোটের বৈঠক। শুধুমাত্র যৌথ আন্দোলন নিয়ে আলোচনা সেরে ফিরতে হল দু’পক্ষকে।

বামেদের সঙ্গে আসন রফা নিয়ে অংক কষতে অনেক আগেই চার সদস্যের কমিটি করে দিয়েছিল কংগ্রেস হাইকমান্ড। এদিনের বৈঠকে বামেদের তরফে সকলে উপস্থিত থাকলেও, কংগ্রেসের তরফে উপস্থিত ছিলেন না দুইজন। আর সেই ২ জন হলেন কংগ্রেস বিধায়ক নেপাল মাহাতো(Nepal Mahato) এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী(Adhir Ranjan Chowdhury)। জানা গিয়েছে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু আসনরফার প্রসঙ্গ তুললে এ বিষয়ে আলোচনা করতে কংগ্রেস এখনই প্রস্তুত নয় বলে জানিয়ে দেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান(Abdul Mannan) ও প্রদীপ ভট্টাচার্য। তাদের তরফে যুক্তি দেওয়া হয় তাদের চার সদস্যের দুজন অনুপস্থিত এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি এ বিষয়ে এখনো কোনও গাইডলাইন জানাননি। ফলস্বরূপ কার্যত ব্যর্থ এ দিনের বাম-কংগ্রেসের বৈঠক।

আরও পড়ুন:সরকারি পরিষেবা পৌঁছে দিতে এবার ১০০ % উপস্থিতির নির্দেশিকা জারি নবান্নের

তবে সূত্রের খবর, রাজ্যে আসন ভাগাভাগি নিয়ে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে সেভাবে কোনও আলোচনা না হলেও বিষয়টি নিয়ে যে যথেষ্ট জলঘোলা হবে তা ইতিমধ্যেই অনুমান করে ফেলেছে দুই শিবিরের শীর্ষ নেতৃত্ব। কারণ রাজ্যের একাধিক বিধানসভা আসনের প্রার্থী নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে দুই দলই। কে কাকে কোন আসন ছাড়বে তার নিয়ে যথেষ্ট জলঘোলা হবে বলে অনুমান। তবে জটিলতা কাটিয়ে বামেরা যে আসন রফা সেরে ফেলতে চায় এ দিন তার ইঙ্গিত দিয়েছেন বিমান বসু(Biman Basu)। বৈঠক শেষে তিনি জানান, ‘জোট কখনই তৃণমূল ও বিজেপির পিছন পিছন চলবে না।’

তবে এই দিনের বৈঠকে যৌথ আন্দোলনের বিষয়গুলি ঠিক করে ফেলেছে দুই শিবির। জানা গেছে, রাজ্যে বাম ও কংগ্রেস দুই শিবিরের তরফে যে আন্দোলন ও কর্মসূচি করা হবে তা হল, ২৩ জানুয়ারি নেতাজির ১২৫তম জন্মদিবসে বামেদের তরফ থেকে হবে অনুষ্ঠান। সেখানে যোগ দেবে কংগ্রেস। আবার ২৬ জানুয়ারি সাধারনতন্ত্র দিবসে বামেরা এককভাবে মানব বন্ধন করবে। ৩০ জানুয়ারি মৌলালি থেকে বেলেঘাটা গান্ধী আশ্রম পর্যন্ত যৌথ মিছিল করা হবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বাম ও কংগ্রেসের তরফে। যৌথভাবে ব্রিগেড সমাবেশের সিদ্ধান্তও এদিন নিয়েছেন বাম-কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দ। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের শেষে অথবা মার্চ মাসের শুরুতে এই সমাবেশ হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে উভয় পক্ষের নেতৃত্বরা।

Advt