পরস্ত্রীকে নিয়ে ঘর করা বাংলার সংস্কৃতিতে চলে না, ফল ভুগবে বিজেপি: তোপ রত্নার

“সন্তানদের ছেড়ে পরস্ত্রীকে নিয়ে ঘর করছেন শোভন। এই সংস্কৃতি বাংলার মানুষ মেনে নেবেন না। ফল ভুগতে হবে বিজেপিকে।” বেহালায় শোভন-বৈশাখীর রোড শোর আগে এভাবেই তোপ দাগলেন শোভন-পত্নী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের (Ranta Chatterjee)। বিজেপি (Bjp) নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (Shovan Chatterjee) বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Boishakhi Banerjee) একা বেহালায় আসার জন্যেও চ্যালেঞ্জ করলেন রত্না। বৈশাখীর নাম না করে তিনি বলেন, শোভনের সঙ্গে আসছেন বলে হয়তো বেহালার মানুষ কিছু বলছেন না। কিন্তু একবার শোভন চট্টোপাধ্যায়ের ছাড়া একা বেহালায় ঢুকে দেখুন মানুষ কী করে!

মঙ্গলবার বিজেপির হয়ে বেহালায় রোড শো শোভন-বৈশাখীর। তার আগে বেহালায় তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) নেতৃত্বে পদযাত্রা করে তৃণমূল। সেই মিছিলে পা মেলান রত্না চট্টোপাধ্যায়ও।

মিছিলের আগে শোভন-বৈশাখীকে তীব্র কটাক্ষ করেন রত্না। তাঁর কথায়, ‘‘মুখে মেক-আপ আর গায়ে গয়না পরে নবদম্পতি সেজে সব জায়গায় যাচ্ছেন ওঁরা। বেহালাতেও (Behala) আসছেন। এতে মানুষ হাসছেন। মুখে কিছু না বললেও এর প্রভাব বিজেপি ইভিএম-এ (Evm) দেখতে পাবে।

শোভন চট্টোপাধ্যায় এখনও বেহালা পূর্বের বিধায়ক। তিনি ওই এলাকার ১৩১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরও। যদিও গত সাড়ে তিন বছর বেহালায় তাঁকে দেখা যায়নি। সেই কথা মনে করিয়ে রত্না বলেন, সাড়ে তিন বছর বেহালার দিকে ফিরেও তাকাননি। আর এখন আসছেন! এরপর শোভন পত্নী বলেন, ‘‘উনি ওই মহিলাকে নিয়ে যত রাস্তায় নামবেন, তৃণমূলের ভোট তত বাড়বে”।

যাঁরা তৃণমূল থেকে বিজেপি-তে যোগ দিচ্ছেন, তাঁরা সকলেই নিজের কেন্দ্র থেকেই বিধানসভা ভোটে লড়তে আগ্রহী। কিন্তু বিজেপি সূত্রের খবর, এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন অমিত শাহ। এবারের নির্বাচনে শোভন চট্টোপাধ্যায় বেহালা কেন্দ্র থেকেই দাঁড়ান কি না আর তাঁর বিরুদ্ধে শাসকদল কাকে প্রার্থী করে সেটাই দেখার।

আরও পড়ুন-রাজীব-শুভেন্দুর ছায়ায় হারিয়ে মুকুল বললেন স্লগ ওভারে খেলব

Advt