সীমান্তে আর নয় গুলির লড়াই, শান্তি বজায় রাখতে সম্মতি ভারত-পাকিস্তানের

জম্মু-কাশ্মীরে(Jammu Kashmir) পাক সীমান্তবর্তী এলাকায় ভারতীয় সেনা(Indian army) ও পাকিস্তানি সেনার(Pakistan army) মধ্যে গুলির লড়াই নতুন কিছু নয়। প্রায় প্রতিদিন সীমান্তবর্তী উপত্যকাবাসীর ঘুম ভাঙতো সেনাবাহিনীর গুলির আওয়াজে। দুইদেশের এহেন গুলির লড়াইয়ে মৃত্যুর ঘটনাও বিশেষ কম নয়। এমনই পরিস্থিতির মাঝে এবার শত্রুতা নয় বন্ধুত্বের বার্তা নিয়ে কাছে এলো ভারত ও পাকিস্তান। সীমান্তে গোলাগুলি বন্ধ করার বিষয়ে একমত হয়েছে দুই দেশ। বৃহস্পতিবার দুই দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে বৈঠকের পর দুই দেশের তরফেই জানিয়ে দেওয়া হয় ভারত -পাকিস্তানের মধ্যে যাবতীয় চুক্তি ও সমঝোতা মেনে চলবে দুই দেশের সেনাবাহিনী।

আরও পড়ুন:মধ্যবিত্তের হেঁশেলে আগুন, একমাসে ১০০ টাকা বাড়ল রান্নার গ্যাসের দাম

এ প্রসঙ্গে দুই দেশের তরফের যে যৌথ বিবৃতি দেওয়া হয়েছে সেখানে বলা হয়েছে ভারত পাকিস্তান দু’দেশের শান্তি রক্ষার স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য ,২০০৩ সালে ভারত- পাকিস্তান সীমান্ত এলাকায় সংঘর্ষবিরতি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল দুই দেশ। তবে খাতায়-কলমে সে চুক্তি থাকলেও বাস্তবে তার কোনো প্রভাব পড়েনি। সাম্প্রতিক সময়ে কার্যত নিয়ম মেনে প্রতিদিন এই চুক্তি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান। এবার নতুন করে ফের এই চুক্তি অক্ষরে অক্ষরে পালন করার প্রতিশ্রুতি দিলেও দুই দেশ। এ প্রসঙ্গে বলে রাখা দরকার, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এক পথ দেওয়া হয়েছিল যেখানে বলা হয় শুধুমাত্র ২০২৯ সালে ৫,১৩৩ বার সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে ছিল পাকিস্তান যার জেরে প্রাণ হারাতে হয় ৪৬ জনকে। বছরে জানুয়ারি মাস থেকে এখনো পর্যন্ত ২৯৯ বার সংঘর্ষ বিরোধী চুক্তি লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান। তবে সেই গোলাগুলি লড়াই এড়িয়ে অতীতের মৈত্রীচুক্তি পুনরায় পালন করার সিদ্ধান্ত নিল দুই দেশের সেনা। এখন দেখার বিষয় এটাই যে পাকিস্তান এই প্রতিশ্রুতি সঠিকভাবে পালন করে কিনা।

Advt