নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিতাদেশের পর বেতন বন্ধের নির্দেশিকা, অনিশ্চয়তায় টেট উত্তীর্ণরা পরীক্ষার্থীরা

একেই আইনি জটে অথৈ জলে পশ্চিমবঙ্গের প্রাথমিক শিক্ষকের নিয়োগ প্রক্রিয়া। তাঁর ওপর গোঁদের ওপর বিষফোঁড়ার মত জেলায় জেলায় স্কুল ইন্সপেক্টরদের নতুন নির্দেশিকা পাঠাল ডিস্ট্রিক্ট প্রাইমারি স্কুল কাউন্সিল। নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, ২০১৪ টেটের নিয়োগের ক্ষেত্রে বেতনের বিল পাঠানো স্থগিত রাখতে হবে। নয়া এই নির্দেশিকায় স্বাভাবিকভাবে অস্বস্তিতে পড়েছেন উত্তীর্ণ চাকরীপ্রার্থীরা।

দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে চাকরির খবর পেয়ে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলছিলেন চাকরী উত্তীর্ণ প্রার্থীরা। কিন্তু সোমবার গোটা প্রক্রিয়ার উপরে কলকাতা হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ জারির পর খানিকটা মুখভার তাঁদের। সপ্তাহখানেক আগে টেটের মেধা তালিকাও প্রকাশ পেয়েছিল। আর সেই মেধা তালিকার ভিত্তিতেই তাঁদের মধ্যে অনেকে কাউন্সেলিংয়ের জন্য ডাক পাওয়ার অপেক্ষায়। আবার অনেকেই অ্যাপয়ন্টমেন্ট লেটার হাতে পেয়ে স্কুলে যোগ দিয়েও ফেলেছিলেন। বুধবার অবধি স্কুলেও গিয়েছেন। কিন্তু আচমকাই সোমবার নিয়োগ প্রক্রিয়ার উপরে স্থগিতাদেশ দিয়েছে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ। এর সূত্র ধরেই বৃহস্পতিবার  জেলায় জেলায় স্কুল ইন্সপেক্টরদের নতুন নির্দেশিকা পাঠানো হয়। এর আগে স্কুলগুলির কাছে যোগদান ও বেতন সংক্রান্ত স্থগিতাদেশের পরও কোনও সরকারি নির্দেশ ছিল না। বৃহস্পতিবার এই নির্দেশিকা চলে আসার পর বিষয়টি সকলের কাছে স্পষ্ট হয়। এমনটাই জানিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। তাই চাকরির অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের মধ্যে।  কবে এই জট খুলবে তার আশায় বুক বাঁধছেন তাঁরা।

Advt