আনিসুর মামলায় রাজ্যের হস্তক্ষেপ ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে মন্তব্য হাইকোর্টের

কুরবান শাহ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত আনিসুর রহমানকে(anisur Rahman) নিষ্কৃতি দেওয়ার আবেদন করায় রাজ্য সরকারকে ভর্ৎসনা করল আদালত(Calcutta High court)।

কলকাতা হাইকোর্টে (Calcutta High Court) তৃণমূল নেতা কুরবান শাহ(kurban shah) খুনের মামলায় জেলে থাকা বিজেপি নেতা আনিসুর রহমানের (Anisur Raham) বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করতে চেয়েছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু, নিম্ন আদালতের সেই নির্দেশে এদিন স্থগিতাদেশ জারি করেছে হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে রাজ্য সরকারের এই পদক্ষেপ অত্যন্ত ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে উল্লেখ করেছেন আদালতের বিচারপতি।

সম্প্রতি রাজ্য সরকারের তরফে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। যেখানে কুরবান শাহ হত্যা মামলা মূল অভিযুক্ত আনিসুর রহমানকে সমস্ত মামলা থেকে নিষ্কৃতি দেওয়ার কথা উল্লেখ করে রাজ্য। ওই বিজ্ঞপ্তি অনুসারে নিম্ন আদালত থেকে আনিসুরকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু, এই বিজ্ঞপ্তির বিরোধিতা করে হাইকোর্টে একটি মামলা দায়ের করে কুরবান শাহর পরিবার। সেই মামলাটি এ দিন বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টচার্যের এজলাসে উঠলে তিনি তীব্র ভর্ৎসনা করেন রাজ্যকে। এই পদক্ষেপকে ‘অত্যন্ত দায়িত্বজ্ঞানহীন’, ‘ভাবনাচিন্তা বিহীন’ বলে আখ্যাও দেন। তিনি বলেন, একটি খুনের মামলায় রাজ্য যদি এভাবে হস্তক্ষেপ করে তবে অন্যান্য তবে অন্যান্য আসামীদের অপরাধ প্রবণতা আরও বাড়বে। একই সঙ্গে নিম্ন আদালতের নির্দেশে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়।

কয়েক বছর আগে পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শুভেন্দু-বিরোধী বলে পরিচিত অনিসুরের দূরত্ব তৈরি হয়। পরে সেই বছরেই বিজেপিতে চলে যান আনিসুর। ঘটনাক্রমে ২০১৯ সালে দুর্গাপুজোর নবমীর দিন রাতে খুন হন পাঁশকুড়ার তৃণমূল ব্লক সভাপতি কুরবান শাহ। এই মামলায় অভিযুক্ত হিসাবে উঠে আসে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়ার বিজেপি নেতা আনিসুরের নাম। গ্রেফতার হন তিনি। সেই আনিসুরের বিরুদ্ধে মামলা ফিরিয়ে নিতে চেয়েছিল রাজ্য।

Advt