স্ট্র্যান্ড রোডের অগ্নিকাণ্ড : ৭ জনের মৃত্যু, ঘটনাস্থলে মুখ্যমন্ত্রী

ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড স্ট্র্যান্ড রোডের পূর্ব রেলের বহুতলে। সোমবার সন্ধে ৬.১৫ নাগাদ স্ট্র্যান্ড রোডের নিউ কয়লাঘাট বিল্ডিংয়ের ১৩ তলায় আগুন লাগে। স্ট্র্যান্ড রোডের ভয়াবহ আগুনে মোট ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এদের ৪ জন দমকল কর্মী, ২ জন রেলকর্মীর একজন Dy CCM, দ্বিতীয় জন তাঁর RPF নিরাপত্তাকর্মী এবং ১জন কলকাতা পুলিশের ASI, বলে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব জানিয়েছেন৷ আরও ২ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে বলে তিনি জানান৷।

ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে ভয়াবহ আগুনে মৃতদের পরিবারপিছু ১০ লক্ষ টাকা দেওয়ার ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রীর, জানালেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। মৃতদের পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন : স্ত্রী লাভলি ভোটের প্রার্থী, স্বামী সৌম্যকে SP-র পদ থেকে সরাতে চলেছে কমিশন

মৃতরা হলেন দমকলকর্মী গিরিশ দে, গৌরব বেইজ, অনিরুদ্ধ জানা, বিমান পুরকায়েত, কলকাতা পুলিশের এএসআই অমিত ভাওয়াল, রেলের ডেপুটি CCM মিস্টার মন্ডল। এখনও একজন আরপিএফ কনস্টেবলের নাম এখনও জানা যায়নি। আরও দুজন নিখোঁজ, তাদেরকে শনাক্ত করা যায়নি। মৃতের সংখ্যা মোট ৯ জন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রেলের জায়গা, রেলের নিজস্ব ফায়ার-ফাইটিং ব্যবস্থা আছে। তাদের ওপরও দায়িত্ব বর্তায়। ওরা কেউ আসেনি। দমকল থেকে ম্যাপ চাওয়া হয়েছিল। সেই সহযোগিতাও করেনি। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, আগুন এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে

এখনও ঘটনাস্থলে রয়েছে দমকলের ১৮টি ইঞ্জিন। রয়েছে হাইড্রলিক ল্যাডার। কিন্তু হাওয়ার জেরে ক্রমেই তা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল বলে জানা গিয়েছিল। মিলেনিয়াম পার্কের উল্টো দিকের ওই বহুতলে নিউ কয়লাঘাটা বিল্ডিংয়ের ১৩ তলায় রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের অফিস। আগুনের জেরে বন্ধ রয়েছে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের অনলাইন টিকিট বুকিং। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের অনলাইন টিকিট বুকিংও বন্ধ রয়েছে। আগুনের জেরে দীর্ঘক্ষণ বন্ধ হয়ে যায় বাবুঘাট থেকে হাওড়া পর্যন্ত যান চলাচল।

Advt