পাখির চোখ নির্বাচন: ‘দিদি’র মোকাবিলায় ‘মোটাভাই’ হলেন ‘মোদিদাদা’

ভোট বড় বালাই। তার জন্য দলবদল। আনুষঙ্গিক পরিচ্ছদ বদল। আবার কখনও কখনও নিজের পরিচয়ও একটু বদল করতে হয় বৈ কী! মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Bandopadhyay) পরিচয় তিনি বাংলার ‘দিদি’। আর সেটাকেই টক্কর দিতে ‘মোদিজি’ হয়ে গেলেন ‘মোদিদাদা’। গুজরাটের (Gujarat) রাজনীতির আঙিনা থেকেই নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) পরিচয় ‘মোটাভাই’ হিসেবেই। গুজরাটি ভাষায় ‘মোটাভাই’ মানে ‘বড়ভাই’। নীলবাড়ির লড়াইয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী কাউকে ঘোষণা করেনি বিজেপি। বরং নরেন্দ্র মোদিকে সামনে রেখেই প্রচার চলছে। বর্তমান শাসকদলকে হারাতে প্রধানমন্ত্রীর নামেই ভোট চাইছেন দলের নেতারা। আর সে ক্ষেত্রে বাংলার ছোঁয়া দিতে ‘মোদি দাদাকে ভোট দিন’ বলে শুরু হল প্রচার। ইতিমধ্যে পোস্টারও তৈরি করে ফেলেছে পদ্ম শিবির। দলের দিল্লির বিধায়ক তথা মুখপাত্র তাজিন্দর পাল সিংহ বাগ্গা ইতিমধ্যেই নিজের টুইটারের (Twitter) প্রোফাইলে সেই ছবি দিয়েছেন। বিজেপি সূত্রে খবর, খুব তাড়াতাড়ি ওই পোস্টার নিয়ে প্রচার শুরু হবে।

আরও পড়ুন-এবারের সমীক্ষাতেও এগিয়ে তৃণমূল, আরও পিছিয়ে পদ্ম

বাংলার মানুষের পাশাপাশি, জাতীয় রাজনীতিতেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিচয় ‘দিদি’ হিসেবে। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর এই ‘পাশের বাড়ির মেয়ে’ ইমেজেই তাঁর সবচেয়ে বড় ইউএসপি। গুজরাটের মানুষের কাছেও মোদি পরিচয় ‘মোটাভাই’ অর্থাৎ বড় দাদা হিসেবে। কিন্তু গা থেকে বহিরাগতের তকমা ঝেড়ে ফেলতে এবার ‘মোটাভাই’ থেকে ‘মোদিদাদা’ হওয়ার চেষ্টা প্রধানমন্ত্রীর, মত রাজনৈতিক মহলের।

Advt