এবারের সমীক্ষাতেও এগিয়ে তৃণমূল, আরও পিছিয়ে পদ্ম

ভোট চাইতে গিয়ে আসছে ততই বাড়ছে সমীক্ষা। নির্বাচনের ফলাফল এখনও পর্যন্ত যত সমীক্ষা হয়েছে তার সবগুলিতেই এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল (Tmc)। ফেব্রুয়ারির (February) তৃতীয় সপ্তাহে রাজ্যের ২৯৪টি কেন্দ্রের মধ্যে ১১৭টি নিয়ে এক সমীক্ষা করা হয়। মোট ৯ হাজার ৩৬০ জনের মতামতের ভিত্তিতে সিএনএক্স- এবিপি আনন্দের সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে তৃণমূল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে। যদিও তখনও পর্যন্ত কোনও দলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হয়নি।

সমীক্ষা অনুযায়ী, তৃণমূল পেতে পারে ১৫৪ থেকে ১৬৪। বিজেপি (Bjp) ১০২ থেকে ১১২। সংযুক্ত মোর্চা ২২ থেকে ৩০ এবং অন্যেরা ১ থেকে ৩ আসন পেতে পারে।

আরও পড়ুন-রেলের তরফ থেকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে বার্তা রেলমন্ত্রীর

ভোটের ফল নিয়ে সিএনএক্স (Cnx) প্রথম সমীক্ষাটি করেছিল মাসখানেক আগে। সেখানে ইঙ্গিত ছিল, তৃণমূল পেতে পারে ১৪৬- ১৫৬। বিজেপি পেতে ১১৩- ১২১। বাম- কংগ্রেস (Left-Congress) ২০- ২৮ এবং অন্যেরা ১- ৩। তখনও সংযুক্ত মোর্চা হয়নি।

তবে, পশ্চিমবঙ্গের আসন সংখ্যার নিরিখে একক গরিষ্ঠতার জন্য যে কোনও দল বা জোটকে কমপক্ষে ১৪৮ আসন পেতে হবে। সে দিক থেকে সিএনএক্স-এর প্রথম সমীক্ষায় তৃণমূলের নূন্যতম আসন সম্ভাবনা ১৪৮ ছোঁয়নি। এ বার তাদের দ্বিতীয় সমীক্ষায় সেই সম্ভাবনা উজ্জ্বল। রাজ্যের বর্তমান শাসকদল কমপক্ষে ১৫৪টি আসন পাবে বলে ইঙ্গিত। এই সংখ্যা ১৫৬ থেকে ১৬৪-তে পৌঁছতে পারে বলে মত।

অন্য দিকে, বিজেপির যে আসন সংখ্যা প্রথম সমীক্ষায় ন্যূনতম ১১৩ ধরা ছিল, এ বার তা কমে ১০২। সর্বোচ্চ আসন প্রাপ্তির সম্ভাবনাও একইভাবে ১২১ থেকে কমে হয়েছে ১১২। বাম- কংগ্রেসের অবস্থান দুই সমীক্ষাতেই মোটামুটি এক; প্রথম সমীক্ষায় ২০- ২৮, পরেরটায় ২২- ৩০।

শতাংশের হিসেবে অবশ্য দুই সমীক্ষাতেই তৃণমূল একই জায়গায় দাঁড়িয়ে— ৪২%। তবে বিজেপির ভোট শতাংশ ৩৭ থেকে কমে ৩৪% হতে পারে বলে ইঙ্গিত সমীক্ষায়। তবে বাম-কংগ্রেসের ভোট শতাংশ ১৭ থেকে বেড়ে ২০ হতে পারে।

মুখ্যমন্ত্রীর দৌড়ে প্রতিবারের মতো এবারও এগিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Bandopadhyay)। এই সমীক্ষায় মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতাকে পছন্দ করেছেন শতকরা ৪৩ জন। দিলীপ ঘোষকে (Dilip Ghosh) ২৪%। আর ৬১% ভোটার এই সমীক্ষায় জানিয়েছেন, বিজেপি সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা করলে ভোটে লাভবান হতে পারে।বিজেপির ক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িকতার তকমা দিয়েছেন ৬০%, দুর্নীতি ৪১% আর পরিবারতন্ত্র ৩১%।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, যে পরিমাণ উত্তরদাতা সরাসরি উত্তর দেননি, তাঁদের মতামত দেওয়ার ফলে মূল ছবি অনেকটা বদলে যেতে পারে। তবে, রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে এই সমীক্ষা অনেক সময়ই মেলে না সম্প্রতি বিহার বিধানসভার নির্বাচনে তার প্রমাণ।

Advt