রাজ্য সরকার বিরোধী বিজেপির শ্রাবন্তীর পোস্টে মিমি-নুসরত-কৌশানীর লাইক!

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজেপি প্রার্থী টলি-তারকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্ট। ভোটের মুখে পোস্ট। স্বভাবতই তাক করা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে সেই পোস্টে লাইক দিয়ে বসে আছেন তৃণমূলের দুই সাংসদ আর এক প্রার্থী। আর সে নিয়ে বুধবার বিকেল থেকে রাজনৈতিক মহলে জোর আলোচনা এবং নানা গুঞ্জন ক্রমশ ডালপালা মেলতে শুরু করেছে।

একুশের নির্বাচনে বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রে শ্রাবন্তীকে প্রার্থী করেছে গেরুয়া শিবির। মঙ্গলবার আলিপুর জেলা শাসকের কার্যালয়ে গিয়ে মনোনয়ন জমা দেন তিনি। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে রাজ্য সরকারকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন শ্রাবন্তী। এক সময়ে শাসক দলের ঘনিষ্ঠ এই অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিজির নেতৃত্বে পশ্চিমবঙ্গকে দুর্নীতি, তোলাবাজি মুক্ত করে, বেহালা পশ্চিমে শুধু ক্লাবে ক্লাবে ফূর্তি করার দান খয়রাতি নয়, সামাজিক উন্নয়নের সঙ্গে সোনার বাংলার সংকল্প নিয়ে বেহালা পশ্চিমে সুখে-দুঃখে সব সময় পাশে দাঁড়ানোর শপথ নিয়ে আজ মনোনয়ন পত্র জমা দিলাম’। হ্যাশট্যাগে শ্রাবন্তী দিয়েছেন #Vote4BJP #EbarBehalayBJP, #Vote4SonarBangla, #ModirSatheBangla।

 

অভিনেত্রীর এই পোস্টে লাইকের সংখ্যা ১৮ হাজারের বেশি। সকলকে অবাক করে শ্রাবন্তীর পোস্টে লাইক দিয়েছেন তৃণমূলের দুই তারকা সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ও নুসরত জাহান। সঙ্গে যোগ হয়েছে বিধানসভায় কৃষ্ণনগরের উত্তরের তৃণমূলের প্রার্থী কৌশানী মুখোপাধ্যায়। প্রথম ২ জন শাসকদলের সাংসদ। রাজ্য সরকারের সমালোচনা করে পোস্ট, আর তাতে লাইক দিচ্ছেন খোদ শাসকদলের দুই সাংসদ!

চমকে গিয়েছেন নেটিজেনরা। এইসব টলি তারকাদের রাজনৈতিক বোধ-বুদ্ধি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। দলের নেত্রী, সাংসদ, তাঁরা কোনও পোস্টে লাইক দেওয়ার আগে বিষয়টি পড়বেন না! না দেখেই লাইক দিয়ে ভোটের মুখে দলকে অস্বস্তিতে ফেলবেন? এগুলো আসলে রাজনৈতিক অশিক্ষার ফল। আবার কেউ কেউ বলছেন, অধিকাংশ টলি তারকা, যাঁরা জনপ্রতিনিধি হয়েছেন, তাঁদের রাজনৈতিক জ্ঞানবুদ্ধির চর্চার প্রয়োজন রয়েছে। নইলে এমনটা হওয়ার কথা নয়। অনেকে আবার বলছেন, এটা ইচ্ছাকৃত নয়তো! গোটা ঘটনায় তৃণমূলের অন্দরমহলও বিরক্ত। জানতে চাওয়া হবে কেন এই ‘দুর্মতি’!

আরও পড়ুন- সি ভোটারের চূড়ান্ত জনমত সমীক্ষাতেও এগিয়ে তৃণমূল

Advt