কৃত্রিম হৃদপিণ্ড বসিয়ে সফল অস্ত্রোপচার এবার কলকাতাতেও

তিনমাস আগেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন ছত্তীসগড়ের চুয়ান্ন বছরের এক ব্যক্তি। প্রতিস্থাপনযোগ্য হৃদপিন্ডের আবেদন করেও সাড়া পাননি। হৃদস্পন্দন প্রায় বন্ধ হয়েই এসেছিল। এই পরিস্থিতিতে যান্ত্রিক পদ্ধতিতে হৃদপিন্ড সচল রাখার জন্য শহরে এই প্রথম একটি সফল অস্ত্রোপচার করেন কলকাতার চিকিৎসকরা। অস্ত্রোপচারের পর তাঁরা জানান, “আপাতত সুস্থ আছেন রোগী। প্রতিস্থাপনযোগ্য হৃদপিণ্ডের জন্য অপেক্ষা করে বসে থাকার অবস্থা, অনেকটাই বদলাল।” চিকিৎসকদের সঙ্গে সঙ্গে কলকাতায় এধরণের রোগ নিরাময়ের উপায়ও এখন অনেকটাই সহজ হল।

এই অস্ত্রোপচারের সঙ্গে যুক্ত এক চিকিৎসক জানান, “রোগীর হৃদপিণ্ড কাজ করা একেবারেই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। জরুরি পরিস্হিতিতে প্রতিস্থাপনযোগ্য হৃদপিণ্ডের জন্য আবেদন করেও সাড়া মেলেনি। “এমতাবস্থায় কলকাতায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ওই রোগীকে ভর্তি করা হয়। এরপর তাঁর শরীরে একটি যন্ত্র বসিয়ে কৃত্রিম পদ্ধতিতে হৃদপিণ্ড চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। রোগীর পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করে এ ক্ষেত্রে হার্টমেন্ট-২ নামে একটি কৃত্রিম ‘হার্ট পাম্প’ রোগীর শরীরে বসানোর তড়িঘড়ি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপর দিল্লি থেকে আনানো হয় যন্ত্র। গত সোমবার সকালে অস্ত্রোপচার সফল হওয়ায় রোগী তাঁর জীবন ফিরে পান। চিকিৎসকদের দাবি, কৃত্রিম এই পাম্প পাঁচ থেকে দশ বছর ভালোভাবে কাজ করতে পারে। রোজকার হাঁটাচলা , কাজ করা বা গাড়ি চালানোর কোনও সমস্যা হয় না। তবে বেল্ট পরে নিয়মিত স্নান খাওয়া করতে পারলেও সাঁতার কাটা যায় না।

Advt