অসহায় প্রশাসন! বিধিভঙ্গে বাধা দেওয়ায় পুলিশকে জুতোপেটা করল বিজেপি সমর্থকরা

অসহায় প্রশাসন!  ক্ষমতায় থাকলে ঠিক কী কী করা যায়, তা আরও একবার করে দেখাল যোগী রাজ্য। স্নান করতে যাওয়ার জন্য রেলিং টপকে নদীর দিকে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। যা বেআইনি। তাই বাধা দিয়েছিল পুলিশ। আর তাতেই পালটা পুলিশের উপর চোটপাট শুরু করে বিজেপি-সঙ্ঘ সমর্থকরা। বাধা দিয়েই পুলিশ বিজেপি কর্মীদের কার্যত ‘ অপমান’ করেছে এমন দাবি তুলে শনিবার দিনভর দফায় দফায় পুলিশকে পেটাল তারা। তাদের সঙ্গে যোগ দেয় বিজেপি কর্মী সমর্থকরাও। পুলিশের উপর তারা এতটাই ক্ষুব্ধ যে চটি খুলেও প্রকাশ্যে রাস্তায় মারতে থাকে পুলিশকে। ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।  উল্টে পুলিশকেই তাঁদের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চাইতে হয়েছে। গোটা ঘটনায় উদাসীন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। কোথাও কোনও প্রতিক্রিয়া দিলেন না তিনি।

শনিবার মথুরায় এই ঘটনা ঘটার পর দিনভর কোথাও পুলিশের মাথায় হেলমেট দিয়ে, কোথাও চটি দিয়ে পেটান বিজেপি-সঙ্ঘ কর্মীরা। পাশাপাশি পুলিশকে মারধরের মাঝেই ‘জয় শ্রী রাম’ ধ্বনিও তোলেন বিজেপি-সঙ্ঘ কর্মীরা। ভিড়ের মধ্যে অন্য পুলিশ কর্মীরা থাকলেও তাঁদের বেশির ভাগই সহকর্মীকে মার খাওয়ার হাত থেকে বাঁচাতে বিজেপি কর্মীদের বোঝাতে থাকেন। শেষে পুলিশ পেটানো দেখতে জমা হওয়া ভিড় ঠেকাতে রীতিমতো ঘনঘন বাঁশি বাজিয়ে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করেন আরেক পুলিশ কর্মী। শেষমেশ বিজেপি সমর্থকদের শান্ত করতে তাদের দাবি মেনে চার পুলিশের বিরুদ্ধে আরএসএস প্রচারককে ‘খুনের চেষ্টা’র অভিযোগ আনা হয়েছে! শনিবার এই ঘটনায় আবারও আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়ল যোগী রাজ্য।

Advt